কালো টাকা সাদা, ভুল রিপোর্ট, কোনো সুবিধা দেয়া হয়নি: অর্থমন্ত্রী

Muhitকালো টাকা নিয়ে গণমাধ্যমে ভুল রিপোর্ট প্রকাশ করা হচ্ছে অভিযোগ করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ‘বাজেটে কালো টাকা সাদা করার বাড়তি কোনো সুবিধা দেওয়া হয়নি। প্রচলিত আয়কর আইনেই অপ্রদর্শিত অর্থ জরিমানা দিয়ে বৈধ করার সুযোগ রয়েছে।’

মঙ্গলবার সকালে নগরীর শেরেবাংলা নগরে পরিকল্পনা কমিশনে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে (ইআরডি) সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

মুহিত বলেন, ‘এটি আয়কর আইনেই রয়েছে। আমি নতুন করে কিছু করিনি। যারা এসব নিয়ে কথা বলে তারা অল আর রাবিশ। ইট ইজ আটার্লি ননসেন্স।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে কালো টাকাকে কোনো সুযোগ দেয়া হয়নি। আমি ঠিক করেছি, রিয়েল এস্টেটে স্কয়ার ফুট অনুযায়ী জরিমানা দিয়ে বিনিয়োগ করা যাবে। এটিও আইন অনুযায়ী।’

মন্ত্রী বলেন, ‘কালো টাকা নিয়ে মিডিয়ায় আপনারা সবাই ভুল রিপোর্ট লিখেছেন। রাবিশ! এই বাজেটে আমি অতিরিক্ত কোনো সুবিধা দিইনি।’

এর আগে অর্থমন্ত্রী আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল আইএমএফের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নায়েকি সিনোহারার সঙ্গে বৈঠক করেন।

পরে বেসিক ব্যাংকের অনিয়মের ব্যাপারে বিশ্ব ব্যাংক যথাযথ ব্যবস্থা নিতে বলেছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ব্যবস্থা নিচ্ছি না একথা ঠিক না, একটু সময় লাগবে।’

আইএমএফ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘আগে বাংলাদেশে আইএমএফ’র তেমন কোনো কাজ ছিল না। কিন্তু আমি আসার পরে অনেক ভালো কাজ হচ্ছে। বিবিধ গুরুত্বপূর্ণ খাতে আইএমএফ অবদান রাখছে।’

প্রসঙ্গত, কালো টাকা সাদা করার সুযোগ বাতিলের পক্ষে বরাবর মত দিলেও শেষে বাজেটে আবাসন খাতে বিনিয়োগের শর্তে এই সুযোগ রাখার ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী।

বাজেটের সমাপনী বক্তৃতায় তিনি বলেছিলেন, ‘আবাসন খাতে প্রতি বর্গমিটারে নির্দিষ্ট পরিমাণ কর প্রদান করলে বিনা প্রশ্নে বিনিয়োগ মেনে নেয়ার বিধানটি কর প্রদান পদ্ধতিতে সরলীকরণমাত্র।’