ঈমানী দৃঢ়তা দিয়ে সরকারের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করতে হবে : শিবির সেক্রেটারী

sg-cuবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সেক্রেটারী জেনারেল আতিকুর রহমান বলেন, ইসলামের আলোকিত পথ অনুসরণকারীদের উপর জুলুম নির্যাতন আসবেই। সকল প্রকার জুলুম-নির্যাতন ঈমানী দৃঢ়তা দিয়ে মোকাবেলা করে ময়দানে ইসলামী আন্দোলনের কাজকে আরও গতিশীল করতে হবে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর দেশ থেকে ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলনকে নিশ্চিহ্ন করার নীলনকশা বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের সেই নীল নকশা বাস্তবায়নে ছাত্রশিবিরকে প্রতিবন্ধকতা মনে করে শিবিরের নেতা-কর্মীদের উপর মধ্য যুগীয় বর্বর কায়দায় নির্যাতন চালাচ্ছে। কিন্তু নির্যাতন করে কোন আদর্শকে নিশ্চিহৃ করা যায় না। তাই ছাত্রশিবিরকেও  তারা দমিয়ে রাখতে পারছে না এবং ভবিষ্যতেও পারবে না।
তিনি আজ ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম মহানগরী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সদস্য সমাবেশে প্র্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তরের সদ্য বিদায়ী সভাপতি আ ন ম মাসরুর হোসাইনের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক নাভিদ আনোয়ার, ছাত্রকল্যাণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, বিতর্ক সম্পাদক বদিউল আলম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক তারেক মনোয়ার, সাবেক কেন্দ্রীয় অফিস সম্পাদক ফয়সাল মো. ইউনুস ও সাবেক কেন্দ্রীয় প্রকাশনা সম্পাদক মিজানুর রহমান।

শিবির সেক্রেটারী জেনারেল বলেন, রমজান মুসলমানদের জন্য প্রশিক্ষণের মাস। আল্লাহর সান্নিধ্য লাভের মাস। রমজান মাস থেকে শিক্ষাগ্রহণ করে নিজেদের জীবন পরিচালনা করতে হবে। রাসূল (সাঃ) এর পথ অনুসরণ করে শিবির সদস্যদের জাগতিক ও নৈতিক দিক থেকে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করতে হবে।
তিনি ছাত্রলীগের চলামান সহিংসতা সম্পর্কে বলেন, সরকারি মদদে ছাত্রলীগ দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে তাদের নির্মম হামলায় একর পর এক মেধাবী মুখ অকালে ঝরে যাচ্ছে। কিন্তু সরকার সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা না নিয়ে ছাত্রশিবিরের উপর জুুলুম-নির্যাতন, হামলা-মামলা চালিয়ে যাচ্ছে। ছাত্রলীগের বর্বতায় শিক্ষাঙ্গনে আজ পড়া লেখার কোন পরিবেশ নেই।

শিবির সেক্রেটারী জেনারেল আরও বলেন, রমজান মাসেই মহানবী (সা.) এর নেতৃত্বে সাহাবাগণ অন্যায় জুলুম অবিচারের বিরুদ্ধে লড়াই করে জয়ী হয়ে ছিলেন। ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলনকে নির্মূল করতে বাতিলের ষড়যন্ত্র কোন কালেই থেমে থাকেনি। সুতরাং ছাত্রশিবির নেতাকর্মীদের বসে থাকার সুযোগ নেই। মাহে রমজানের প্রশিক্ষণকে কাজে লাগিয়ে এক দিকে যেমন বাতিলের মোকাবেলার জন্য দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ থাকতে হবে, তেমনি ইসলামকে বাংলার জমিনে প্রতিষ্ঠা করার জন্য সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।

তিনি কুরআন নাযিলের এ মাসে প্রতিটি ছাত্রের কাছে কুরআনের বাণী পৌছে দিতে ছাত্রশিবির নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।