যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১০

30327_jessoreবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : যশোর বেনাপোল সড়কের বেনেয়ালী কলোনির পেট্রোল পাম্পের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ১০ জন। নিহতদের মধ্যে পাঁচজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- প্রসেনজিৎ (৩৮), আব্দুস সালাম (৩২), রণজিৎ পাল (৩৪), বিদ্যুৎ (৩২) ও জামান। এ ঘটনায় আরও ২০ জন আহত হয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বেনাপোলগামী সোহাগ পরিবহনের একটি নৈশ কোচের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের একটি মেহগনি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী ও ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। স্থানীয়রা জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা সোহাগ পরিবহনের নৈশ কোচটি ৩৫ জন যাত্রী নিয়ে বেনাপোল যাচ্ছিল। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে বাসটি ঝিকরগাছার বেনেয়ালী বাজার অতিক্রম করে। সে সময় প্রবল বেগে বৃষ্টিপাত হচ্ছিল। ধারণা করা হচ্ছে বৃষ্টির কারণে বাসের চালক বাসটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে । ফলে দ্রুতগামী বাসটি রাস্তার পাশের একটি মেহগনি গাছের সঙ্গে ধাক্কা দিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে বাসের ৬ যাত্রী নিহত হয়। আহত হয় কমপক্ষে ২৫ যাত্রী। দুর্ঘটনার পরপরই স্থানীয়রা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করে। খবর পেয়ে ঝিকরগাছা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ও আহতদের উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য নিহতদের লাশ যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। আর আহতদের ঝিকরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।  সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২ জন ও যশোর জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে আরও ২ জন মারা যায় বলে ঝিকরগাছা থানার ওসি মোশারফ হোসেন জানিয়েছেন।
এদিকে ঝিকরগাছা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বেশ কয়েকজন আহতের নাম পরিচয় জানা গেছে। এরা হচ্ছেনÑ রাজধানী ঢাকার কেরানীগঞ্জের আবুল মিয়ার ছেলে বাশার (৩৫), ওয়ারী থানা এলাকার শফিয়ার রহমানের ছেলে জানে আলম, বংশালের জাকির হোসেনের ছেলে শাওন (২৫), গোপিবাগের আবুল কাশেমের মেয়ে রুবী (২৮), বনানী এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে হাবিব (৩০), কেরানীগঞ্জের আহম্মেদ তোফাজ্জেল হোসেন (৩২), পশ্চিম দিলকুশা এলাকার স্বপন ঘোষের স্ত্রী গীতা ঘোষ, উত্তরা এলাকার ইসমাইল হোসেনের ছেলে ঝন্টু (২৫), আশুলিয়া এলাকার বজলুর রহমানের ছেলে জামাল উদ্দিন (৩৬), তাঁতীবাজার এলাকার জনি হোসেন (৩৫), ঝিকরগাছার খাঁশখালী গ্রামের নাসির উদ্দিনের মেয়ে আসমা খাতুন (১৯),  সিলেটের মৃত-হাবিবুল্লার ছেলে আব্দুর রব (৭০)। এছাড়া বিল্লাল হোসেন ও হাবিবুর রহমান নামের আরও ২ জন মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসকরা।