শিরোনাম

রাবি ছাত্রলীগের সেই সম্পাদকের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ

rajsahi uniমারুফুল ইসলাম লিমন, রাবি প্রতিনিধি ঃ মুঠোফোনে নাম্বার সেভ না থাকায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সাংবাদিককে গালিগালাজ করে হত্যার হুমকি দেয়ায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সেই সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ আল হোসেন তুহিনের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভুক্তভোগী সাংবাদিক দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার রাজশাহীর নিজস্ব প্রতিবেদক আমজাদ হোসেন শিমুল ছাত্রলীগ ক্যাডার তুহিনের বিরুদ্ধে নগরীর মতিহার থানায় এ অভিযোগ দায়ের করেন।

মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসন বলেন, ‘থানায় এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ দিলে তা গ্রহন করা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

উল্লেখ্য, তুহিনের নেতৃত্বে গত ১৬ জুন রাবি ছাত্রশিবির নেতা রাসেল আলমের পা থেকে গোড়ালী বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়। ২০১২ সালে ২ অক্টোবর প্রকাশ্য দিবালোকে শিবিরকর্মীদের উপর গুলি ছোঁড়েন তিনি। তুহিন নিজ দলীয়কর্মী আবদুল্লাহ আল সোহেল হত্যা মামলার প্রধান আসামী। ওই মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানাও জারি আছে। তার বিরুদ্ধে নগরীর পদ্মা আবাসিক এলাকায় স্থানীয় এক ব্যক্তির বাড়িতে ডাকাতি করার অভিযোগ রয়েছে। এ ডাকাতি মামলায় সে তিন মাস জেলও খেটেছেন। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মারধর, প্রকাশ্যে অস্ত্র উঁচিয়ে প্রতিপক্ষের ওপর হামলা করা এবং চাঁদাবাজি করারও অভিযোগ রয়েছে।

ভুক্তভোগী সাংবাদিক শিমুল জানান, বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তুহিন শনিবার দুপুরে তার মুঠোফোনে যোগাযোগ করেন। তার ব্যবহৃত সিমটি অন্য আরেকটি ফোনে উঠানো থাকায় তুহিনের মোবাইল নম্বরটি সেভ ছিল না। ফলে তুহিনকে তিনি চিনতে পারেননি।

সাংবাদিক শিমুলের মুঠোফোনে তুহিনের মুঠোফোন নাম্বর সেভ না থাকায় ওই সাংবাদিককে তুহিন অকথ্য ভাষায় গালাগাল করতে থাকেন এবং তাকে হত্যার হুমকি দেন।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তৌহিদ আল হোসেন তুহিন বলেন, আসলে আমি তাকে ঠাট্টার ছলে কথাগুলো বলেছিলাম। সে কেন আমার ফোন নাম্বার সেভ করেনি। ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের নাম্বার সেভ থাকে না কেন ওই সাংবাদিকের কাছে পাল্টা প্রশ্ন করেন তুহিন।

এদিকে সাংবাদিককে হত্যার হুমকির তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব। গতকাল রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাব সভাপতি ডালিম হোসেন শান্ত ও সাধারণ সম্পাদক সাইফুল্লাহ সাইফ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বরাবরই সাংবাদিকরা ক্ষমতাসীনদের হামলা, মামলা ও নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। মুখে গণতন্ত্রের কথা বললেও ক্ষমতাসীনরা মানুষের বাক স্বাধীনতা হরণ করছে। সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ কর্তৃক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাগুলো তারই বহি:প্রকাশ। বিবৃতিতে তারা অবিলম্বে সাংবাদিক শিমুলকে হত্যার হুমকিদাতা ছাত্রলীগ সম্পাদক তুহিনের দৃষ্টান্তমূলক শারি দাবি করেন।

এছাড়াও পৃথক বিবৃতিতে সাংবাদিক শিমুলকে হুমকিসহ অশ্লীল ভাষায় গালগাল করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন, বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি এবং বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি।