মাহে রমজান উপলক্ষে সসাসে’র তিনটি এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন

unnamed copy.jpg-12বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : সমন্বিত সাংস্কৃতিক সংসদ (সসাস) এর ভাইস চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান বলেছেন, ৯০ ভাগ মুসলমানের বাংলাদেশ এখন বেহায়াপনা ও বিজাতীয় অপসংস্কৃতি গ্রাস করেছে। পাশ্চাত্য ও ইন্ডিয়ান সংস্কৃতি আমাদের মূল্যবোধের অবক্ষয় ঘটাচ্ছে। তরুণ সমাজকে ধ্বংসের দিকে ধাবিত করছে। কাজেই যুব সমাজের চরিত্র  রক্ষায় ইসলামী সংস্কৃতির ব্যাপক প্রচার ও প্রসার ঘটাতে হবে।

তিনি আজ মাহে রমজান উপলক্ষে সমন্বিত সাংস্কৃতিক সংসদ (সসাস) কর্তৃক তিনটি এ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। সসাস এর নির্বাহী পরিচালক তারেক মোনাওয়ারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সসাসের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা নাভিদ আনোয়ার,অফিস সম্পাদক মিরাদুল ইসলাম,সংগীত পরিচালক মাঈনুদ্দিন বকুল সহ সসাস কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

আতিকুর রহমান বলেন, বিজাতীয় সংস্কৃতির কালো থাবায় যুব সমাজের বিশাল অংশ আজ বিপথগামী হয়ে পড়েছে। পাশ্চাত্য ও ইন্ডিয়ান সংস্কৃতি আমাদের সভ্য নয়, বরং ধীরে ধীরে অসভ্যতার দিকে নিয়ে যাচ্ছে। দুঃখজনকভাবে এ অপসংস্কৃতিকে রাষ্ট্রীয় ভাবে পৃষ্ট পোষকতা দেয়া হচ্ছে। বিদেশী নর্তকীদের ভাড়া করে এনে এদেশে উলঙ্গ নৃত্য করানো হয়। এই অপসংস্কৃতির প্রভাবে দেশে আশঙ্কাজনক হারে ধর্ষণ, নারী নির্যাতন, অনৈতিক কর্মকান্ড ও মাদকের প্রসার ঘটছে। পরিমল ও ঐশীরা এই অপসংস্কৃতির ফসল। কাজেই অপসংস্কৃতির লালন করা আত্মঘাতি জাতি বিনাশী তৎপরতা ছাড়া কিছু নয়।

তিনি বলেন, অপসংস্কৃতির এ করাল গ্রাস থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে হবে। সরকারের অপেক্ষায় বসে থাকলে চলবে না। যার যার অবস্থান থেকে এসব নোংরা সংস্কৃতিকে প্রতিরোধ করতে হবে। সেক্ষেত্রে সসাস কর্তৃক যে এ্যালবাম প্রকাশ করা হয়েছে তা সুস্থ সংস্কৃতি চর্চা ও প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা রাখবে বলে আমি বিশ্বাস করি। মাহে রমজান মুসলমানদের জন্য আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের প্রশিক্ষণের মাস। এ মাসে শয়তানকে বন্দী করা হলেও সমাজ থেকে অপসংস্কৃতি বন্ধ হয়না। তাই রমজানের পবিত্রতা রক্ষায় ও অপসংস্কৃতি মোকাবেলায় সসাসের এ প্রচেষ্টা গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা রাখবে ।

তিনি পবিত্র রমজান মাসে বিজাতীয় সংস্কৃতি থেকে বিরত থেকে ইসলামী সংস্কৃতির চর্চার মাধ্যমে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের চেষ্টা করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।