নারায়ণগঞ্জ-৫ উপনির্বাচন : শামীম ওসমানের অডিও নিয়ে তোলপাড়

29479_samimবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে উপনির্বাচনকে ঘিরে এমপি শামীম ওসমানের গোপন বৈঠকের একটি অডিও রেকর্ড নিয়ে তোলপাড় চলছে। বৈঠকের খবর বর্তমানে নগরীর সর্বত্র আলোচনা হচ্ছে। অডিওতে নির্বাচন উপলক্ষে নেতাকর্মীদের প্রতি শামীম ওসমানের নির্দেশনা শোনা যাচ্ছে। বিভিন্ন গণমাধ্যমে অডিও রেকর্ড নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।
অডিওতে শামীম ওসমান যা বলছেন:
শামীম ওসমান নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জাতীয় পার্টিরটা জাতীয় পার্টি বুঝবে। বিএনপির লগে যদি কিছু লাইন করতে পারলে বিএনপিরটা বুঝব। আওয়ামী লীগেরটা আওয়ামী লীগ বুঝবে। আরেকটা দামি কথা বলিথ আপনি অ-নে-ক বড় নেতা, উনি অ-নে-ক ছোট নেতা। বড় নেতার সেন্টার বড় নেতায় বুঝায়া দেবেন, ছোট নেতারটা ছোট নেতায়। আপনের দৌড়াদৌড়ি কইরা অন্যেরটা বুঝানোর দরকার নাই।
শামীম ওসমানের এ বক্তব্যের পর নেতাকর্মীরা সমস্বরে ‘ঠিক’ বলে হাততালি দেন।
তার পর শামীম ওসমান আবার বলেন, বন্দরের মানুষের দরকার নাই মদনগঞ্জে, আর মদনগঞ্জের মানুষের কলাগাইচ্ছা যাওনের। কলাগাইচ্ছার মানুষ কলাগাইচ্ছারটাই করেন। হিজ হিজ, হুজ হুজ। যার যারটা সে সে করেন। নিজেরটা কইরা দিয়া যদি আপনে মনে করেন, আমার আরও ২/১টা সেন্টার হাতে আছে, এইটা কইরা দিয়া আমি আরও ১০ জায়গায় যাইতে পারমু, যান। কিন্তু এইটা কইরেন না, ওইটা করতে গিয়া আমারটা গেল গা। আমি আপনাগো হুকুম দিতাছি না, অনুরোধ করতাছি।
এর পর শামীম ওসমান বলেন, এখন কথা হলো সেন্টার কমিটি। নির্বাচন কি বিনা পয়সায় করবেনথ নাহ। দুই টাকা খরচ হলে চার টাকা খরচ করেন। সমস্যা নাই। যা লাগে আমি বুঝুম। যা করতে অয় আমি করমু। ফকিরের মতো ইলেকশন করার দরকার নাই। বড়লোকের মতোই করেন। ন্যায়সঙ্গতভাবে নির্বাচন করার জন্য সেন্টার ওয়াইজ যা কিছু করার দরকার, সব করমু। কোথাও কোনো চাঁদাবাজি করবেন না। কারও থেইক্কা কোনো টাকা নেবেন না। আমার ভাইয়ের নির্দেশ, সে কারও থেইক্কা একটা টাকা নিতে দিব না এবং সে নিজেই চাঁদা দেওয়া মানুষ। আল্লায় তাকে তৌফিক দিছে দেওয়ার। এমনকি আমাকেও দিতে দিচ্ছে না সে।
তিনি বলেন, কেউ খবরাখবর নিতে বা গোয়েন্দাগিরি করতে আসছেন? ভাই আমার লগে গোয়েন্দাগিরি কইরেন না। কারণ, প্রত্যেকটা সেন্টারে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন কর্ণার থেকে তিনজন করে ছেলে পাঠাইছি। একজন করে আগামীকাল থেকে নিজাম পরিচয় করিয়ে দেবে। আর দুই জন থাকব। নির্বাচনের দিন আমার যে নির্বাচনী এলাকা আছে, সেখান থেকে ২০-২৫ হাজার লোক আসব আপনাদের সঙ্গে আপনাগো এলাকায় নির্বাচন করতে। যদি কন ২৫ হাজারে অইব না, তাইলে ৫০ হাজারে পাঠামু। ৫০ হাজারে না অইলে এক লাখ পাঠামু, চিন্তা কইরেন না। আমার ফতুল্লা, সিদ্ধিরগঞ্জ, রূপগঞ্জ এবং সোনারগাঁ থেইক্কা এক লাখ লোক নিয়া আসা শামীম ওসমানের জন্য বড় কোনো ব্যাপার না।
উল্লেখ্য, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টি থেকে প্রার্থী হয়েছেন ওসমান পরিবারের এক ভাই সেলিম ওসমান। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন সাবেক অতিরিক্ত সচিব, সাবেক এমপি ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের পদত্যাগী আহ্বায়ক এস এম আকরাম।