রোজার ঈদের পর আন্দোলন চাঙ্গা করতে চায় বিএনপি

bnp-flagবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কঠোর আন্দোলন শুরু করার যে ঘোষণা দিয়েছেন, তার রূপরেখা চূড়ান্ত করা হবে ঈদের আগেই৷ তবে তাঁর উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু জানান, মহাসমাবেশের মাধ্যমে আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে ঈদের পর৷
৫ই জানুয়ারির একতরফা নির্বেচনের পর থেকেই বিএনপির লাগাতার আন্দোলন শুরু করার কথা ছিল৷ কিন্তু তা হয়নি৷ পরে তারা উপজেলা নির্বাচনে অংশ নিয়ে দল গোছানোর কথা বলে উপজেলা নির্বাচনের পর আন্দোলন শুরুর কথা বলেছিল৷ কিন্তু তাও শেষ পর্যন্ত হয়নি৷

এরপর, গত মঙ্গলবার, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, সরকারের পদত্যাগ এবং নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে ঈদের পরে কঠোর আন্দোলন শুরু হবে৷ এ জন্য তিনি দলের নেতা-কর্মী এবং দেশবাসীকে প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান৷

বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু ডয়চে ভেলকে জানিয়েছেন যে, ঈদের পরে বলতে খালেদা জিয়া রোজার ঈদের কথাই বলেছেন৷ রোজার ঈদের পর ঢাকায় মহাসমাবেশের মাধ্যমে খালেদা জিয়া আন্দোলনের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন৷

কী ধরণের আন্দোলন কর্মসূচি দেয়া হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এবার আন্দোলনে প্রথম কাজ হবে জোটের ১৯ দলকে পুরোপুরি আন্দোলনে সম্পৃক্ত করা৷ এ জন্য বিএনপির চেয়ারপার্সনসহ শীর্ষ নেতারা শিগগিরই জোট নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন৷ এছাড়া তৃণমূলের সংগঠন গোছানোর কাজও এই সময়ের মধ্যে শেষ করে আনা হবে৷

শামসুজ্জামান দুদু জানান, পুরো রোজার মাসকে গণসংযোগের কাজে ব্যবহার করা হবে৷ কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত, রাজধানী থেকে উপজেলা-ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত ইফতার মাহফিল থেকে শুরু করে নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই গণসংগের কাজ করা হবে৷

তিনি বলেন, ঈদের পরপরই সংলাপ, সরকারের পদত্যাগ এবং নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে সরকারকে একটি সংক্ষিপ্ত সময় বেধে দেয়া হবে৷ আর সরকার তা মেনে না নিলে ঢাকায় মহাসমাবেশের মাধ্যমে খালেদা জিয়া আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করবেন৷ তাঁর কথায়, এই কর্মসূচিতে হরতাল, অবরোধ, ঘেরাও এবং লংমার্চের মতো কর্মসূচি থাকবে৷

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা বলেন, সরকার র‌্যাব পুলিশ এবং প্রশাসন যন্ত্রকে বিরোধী দল দমনে ব্যবহার করছে৷ তবে নানা ঘটনায় তারা বিতর্কিতও হয়ে পড়েছে৷ তাই এবার তাদের তৎপরতা কম থাকবে বলেই মনে করি আমরা৷

এদিকে সংলাপ নিয়ে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন শামসুজ্জামান দুদু৷ রাষ্ট্রপতি জাতিসংঘের মহাসচিবের সঙ্গে বৈঠকে তিনি বলেছেন, সংলাপ হবে সরকারের মেয়াদের শেষ দিকে৷

দুদু বলেন, রাষ্ট্রপতি এই মন্তব্য করে দলীয় চরিত্রের বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন৷ কিন্তু রাষ্ট্রপতি কোনো দলের হতে পারেন না, তিনি সবার৷
সূত্র: ডয়চে ভেলে