পার্বতীপুরে সরকারী কর্মসৃজন প্রকল্পে সরকারী সফলতায় বাঁধাগ্রস্ত

dinjpurবদরুদ্দোজা বুলু, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

পার্বতীপুরে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সুষ্ঠু তদারকির অভাবে অতি দরিদ্রদের জন্য আত্মকর্ম সংস্থান (কর্মসৃজন) কর্মসূচির শ্রমিকদের অনুপস্থিতি, কাজ না করে টাকা উত্তোলনসহ অনিয়ম ও দুর্নীতির কারণে সরকারী প্রকল্পের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সফলতায় বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন (ত্রাণ) শাখা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১০ ইউনিয়নের ৪০ দিনের কর্মসৃজন ৩৬ টি প্রকল্পের বিপরীতে ১ কোটি ৩২ লাখ টাকার কর্মসৃজন কর্মসূচির কাজ গতকাল সোমবার শেষ হয়েছে। এসব প্রকল্পে মোট ১ হাজার ৭শ’ ২৯ জন শ্রমিকের কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হলেও সুষ্ঠু তদারকির অভাবে এসব প্রকল্পের কাজের তেমন কোনো অগ্রগতি পরিলক্ষিত হয়নি। সরকার দলীয় ও সাধারণ শ্রমিকরা দায়বদ্ধতা ছাড়াই ইচ্ছেমত কাজ করছেন। এমনকি কর্মস্থলে অনুপস্থিত থেকেও টাকা উত্তোলন করার অভিযোগ রয়েছে। প্রকল্পের শ্রমিক দিয়ে ইউপি পরিষদের কিছু সদস্যগণ তাদের নিজস্ব কাজ করিয়ে নেয়ারও অভিযোগ রয়েছে। গত রবিবার উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নে কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজ সরজমিন দেখা যায়, অধিকাংশ তালিকাভুক্ত শ্রমিক অনুপস্থিত ছিল। ৪০ দিনের কর্মসৃজন প্রকল্পের কাজে শ্রমিকরা প্রতি কর্মদিবসের জন্য ১৭৫ টাকা করে পাচ্ছেন।

এদিকে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মনমথপুর, পলাশবাড়ী, চন্ডিপুর ও হরিরামপুর ইউনিয়নে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বলেন, সরকারী এসব প্রকল্পে একটু এদিক-ওদিক হবেই। তবে বেশ কয়েকটি ইউপিতে দায়িত্ব প্রাপ্ত কর্মকর্তারা অফিসের জরুরী কাজ থাকায় ৪০ দিনের মধ্যে মাত্র ২/৩ দিন দায়িত্ব পালন করতে পেরেছেন। অতি দরিদ্রদের জন্য আত্মকর্ম সংস্থান (কর্মসৃজন) ফিল্ড সুপারভাইজার মুসফিকুর রহমান আজ সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় এ প্রতিনিধিকে বলেন, এ প্রকল্পে বেশ কিছু শ্রমিকের অনুপস্থিতির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে কতজন শ্রমিক অনুপস্থিত ছিল তা কাগজ না দেখে তিনি বলতে পারবেন না বলে উল্লেখ করেন। এব্যাপারে আজ সোমবার বিকেলে কয়েক দফায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন (ত্রাণ) শাখা’র কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম এর ব্যাক্তিগত মোবাইল ফোনে ফোন করলে তিনি ফোন রিসিভ না করায় এ বিষয়ে তার মতামত নেওয়া সম্ভব হয়নি।