ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে হঠাৎ বেড়েছে দূর্ঘটনা : ৩ মাসে নিহত ২০, আহত শতাধিক

indexআব্দুর রাজ্জাক :
ঢাকা আরিচা মহাসড়কের হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়েছে দূর্ঘটনা। গত ৩ মাসে মানিকগঞ্জ ও পার্শ্ববর্তী এলাকায় এসব দূর্ঘটনায় মারা গেছে ২০ জন, আহত ও পুঙ্গুত্ব বরণ করেছে প্রায় শতাধীক ব্যক্তি। তাদের মধ্যে সরকারী কর্মকর্তা স্বামী-স্ত্রী ও একই পরিবারের কয়েক সদস্য, রাজনৈতিক নেতা, সাংবাদিকসহ সহ ৫ শিক্ষার্থী রয়েছে। দেশের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ঢাকা আরিচা মহাসড়কে প্রতিনিয়থ নিয়ম নীীত না মেনে বেপরোয়া ও লাইসেন্সবিহীন হাজারো যানবাহন চলছে। যার ফলে প্রায় প্রতিদিনই ঘটছে কোন না কোন ছোট বড় দূর্ঘটনা।
ঢাকা আরিচা মহাসড়কে গত ২০১১ সালে ৫১৭ টি দূর্ঘটনা ঘটে। মারা যায় ৯৬ জন, মৃত্যুর তালিকার মধ্যে ছিল বিশিষ্ট চলচ্চিত্রকার তারেক মাসুদ ও শিশুক মুনীর। আহত হন ৪২১ জন। তখন অব্যাহত নাগরিক আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে এই মহাসড়কের দূর্ঘটনা প্রবণ বাঁকগুলো সংস্কার করা হয়। ২০১২ সালে ১৪১ টি দূর্ঘটনায় নিহত হন ৩৯ জন এবং আহত হন ১১০ জন। ২০১৩ সালে ১০৮ টি দূর্ঘটনায়  ১৮ জন নিহত ও ১০৪ জন আহত হয়। আনুপাতিকহাওে এমহাসড়কে দূর্ঘটনা কিছুটা কমলেও চলতি বছরের গত ৩ মাস ধরে হঠাৎ বৃদ্ধি পেয়েছে দূর্ঘটনা।
গতকাল শনিবার (০৭ জুন ) দুপুরে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের ঘিওরে বাসের চাপায় মোটরসাইকেলের আরোহী দুই যুবলীগ নেতা নিহত হয়েছে। নিহতরা হলো উপজেলার ত্বরা গ্রামের মৃত ইব্রাহেিমর ছেলে রুবেল (২২) ও মৃত মুনজিল আলীর ছেলে সবজেল (২৩)।  এঘটনায় বিক্ষুদ্ধ এলকাবাসী ৫ টি বাসে ভাঙচুর ও একটিতে অগ্নি সংযোগ করে।
গত ৬ জুন ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার  বিসিক শিল্পনগরী এলাকায় বাস চাপায় উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা: দুলালী রানী সরকার ও তার স্বামী শরীয়তপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা দয়াল চন্দ্র সরকার নিহত হয়। স্বামী স্ত্রী মোটর সাইকেল যোগে মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকার দিকে যাচ্ছিলেন। ভিলেজ লাইন পরিবহনের একটি মিনিবাস ওভারটেকিং করার সময় মোটর সাইকেল আরোহী এই দম্পতিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।
গত ৬ জুন মহা সড়কের বলিয়ারপুর এলাকায় একটি মাইক্রোবাসের সঙ্গে ট্রাকের সংঘর্ষে ২ জন নিহত ও ৫ জন আহত হয়। নিহতরা হলো মাইক্রোবাসের যাত্রী  মোঃ গোলাম মর্তুজা (৫০) ও আতাউর রহমান (৪৫)। তাদের বাড়ি সিরাজগঞ্জ সদরে।
গত ৫ জুন ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মুলজান নামক এলকায় দুই যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে শতাধীক যাত্রী। দূর্ঘটনা কবলিত বাস দুটি পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে গেলে মহিলা ও শিশুসহ প্রায় ৫০ জন যাত্রী আহত হয়। এদেও মধ্যে গুরুতর আহত ৫ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মানিকগঞ্জ- গাবতলী আঞ্চলিক সড়কের সিংগাইর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গত ২ জুন রাত ১০ টার দিকে পাটভর্তি একটি ট্রাক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে পাশ্ববর্তী গভীর খাদে পড়ে ট্রাকের চালক ও হেলপার নিহত হয়েছে। এছাড়াও ১৪ জানুয়ারী মোটর সাইকেল নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে দুই কলেজ শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। নিহতরা হলো উপজেলার আইয়ুব খানের ছেলে রনি (২১) ও আব্দুস সালামের ছেলে সজিব (২২)। দুজনের বাড়িই সিংগাইরের বিনোদপুর গ্রামে।
গত ২৫ মে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মুলজান নামক স্থানে সড়ক দূর্ঘটনায় এক মোটর সাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। নিহত মোটর সাইকেলা চালক সিংগাইরের পৌর সদর আঙ্গারিয়া গ্রামের ডা: মিজানুর রহমানের ছেলে মতিউর রহমান লিটন (৪৫)। নিহত লিটন একটি অনলাইন পত্রিকায় কাজ করতো এবং এর আগে সে একটি বেসরকারী টিভি চ্যানেলের ক্যামেরাম্যান হিসেবে কাজ করতো বলে জানা গেছে।
গত ২৭ মে মহাসড়কের সাটুরিয়া উপজেলাধীন দোতরা নামক এলাকায় ঢাকাগামী এক যাত্রীবাহী বাসের চাপায় স্থানীয় ব্যবসায়ী সুরুজ শিকদার (৩২) নিহত হন। এছাড়াও সাটুরিয়ার গোলড়া বাসস্ট্যান্ডে এনএনবি পরিবহনের এক বাসের চাপায়  ঘটনাস্থলেই নিহত হন মধুমালা নামক (৬৫) নামক এক নারী। নিহত মধুমালা বেগম চড়খন্ড গোলড়া গ্রামের মৃত রজ্জব আলীর স্ত্রী। এর মাস খানেক পূর্বে সাটুরিয়ায় সিএনজি উল্টে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র নিহত হয়। ২২মে বিকেলে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় ফটকের সামনে গাড়ি চাপায় ফাতেমা নামের এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী নিহত হয়। এ ঘটনায় আরো ২ জন আহত হয়। নিহত ফাতেমা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষেও ছাত্রী ছিল।
গত ২০ মে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের ধামরাইয়ের ডাউটিয়ায় শ্রমীকবাহী একটি বাস নিয়ন্ত্রন হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে ৩ নারী শ্রমীক আহত হয় এবং আরো ৩৫ শ্রমীক আহত হয়। হতাহতদের সবাই কালামপুর প্রতকি সিরামিকসে কাজ করতো। আহত শ্রমীকদেও অীভযোগ দ্রুত চালাতে গিয়েই চালক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ফেলে। নিহতরা হলো জাহানারা, রওশন আরা ও অর্চণা রানী নামের তিন নারী শ্রমীক।
গত ৬ এপ্রিল মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে আরিচা- টাংগাইল আঞ্চলিক মহাসড়কের চক মিরপুর এলাকায় ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র তৌহিদুল নামায শেষে বাড়ি ফেরার পথে পেছন দিক থেকে একটি লেগুনা চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই সে মারা যায়।
গত ১৪  এপ্রিল ঢাকা আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার টেপড়া এলাকায় সূর্যমুখী পরিবহনের একটি বাসের চাপায় মোটর সাইকেল ২ আরোহী নিহত হয়। নিহতরা হলো বোয়ালী গ্রামের বাহার ইসলাম ইমন (১৮) ও জমদিয়ারা গ্রামের সুমন হোসেন (১৮)। এছাড়াও গত ২৮ জানুয়ারী উথলী সড়কের বাসাইল এলাকায় সিএনজি অটো রিক্সার সাথে সংর্ঘষে মোটর সাইকেল চালক সঞ্জয় সাহা নিহত হয়।
গত ১ মার্চ দুপুরে মহাসড়কের ঘিওর উপজেলাধীন মুন্নু মেডেকেল কলেজের সামনে পাটুরিয়াগামী এনএনবি পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের চাপায় নাসিম মিয়া (৩৫) নামের এক মোটর সাইকেল আরোহীর মুত্যু হয়। এ দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত হন নিহত নাসিমের বোন হরিরামপুর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  কামরুন্নাহার মুন্নী।
মানিকগঞ্জের গোলড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির সার্জেন্ট মোঃ মেহেদী হাসান জানান, অদক্ষ চালক, ট্রাফিক আইন সম্পর্কে অজ্ঞ ও ওভারটের্কি করার মানসিকতা এবং মহাসড়কে মোটর সাইকেলসহ ছোট যানগুলোর বেপরোয়া চলাচলের কারনেই এসব দূর্ঘটনা ঘটে। চালকদের ট্রাফিক নিয়মাবলী ও বেপরোয়া চলাচল নিয়ন্ত্রনে রাখলেই অনেকটাই দূর্ঘটনা নিরসন হবে।