মাসুদ সাঈদীকে সংবর্ধনা দিলো লেবার পার্টি

Iran # 02বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : আল্লামা সাঈদী যুদ্ধাপরাধ বা মানবতাবিরোধী অপরাধী নয়, রাষ্ট্রীয় প্রতিহিংসার রাজনীতির শিকার দাবী করে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান বলেছেন- সরকার সাঈদীকে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করতে ব্যার্থ হয়ে যুদ্ধাপরাধের ধুয়া তুলে আষাড়ে গল্প সাজিয়ে বিচারের নামে অবিচার করছে। পাহাড় সমান জনপ্রিয়তার কারনে সাঈদীকে মিথ্যা ও হয়রানীর উদ্দেশ্যে চরিত্রহননের লক্ষ্যে সরকার যে মরন নেশায় নেমেছে তা সফল হবে না। তিনি বলেন, সাঈদী একজন সৎ চরিত্রবান খোদাভীরু আপোষহীন সাহসী আর্ন্তজাতিক মোফাচ্ছেরে কোরআন। সাঈদীকে গ্রেফতার করে কোটি কোটি মানুষকে কোরান সুন্নাহর মাহফিল থেকে বঞ্চিত করে সরকার দেশে অশ্লীল যাত্রাপালা, সার্কাস, মদ, জুয়া, ফেন্সীডিল, ইয়াবাহ সহ উলংগ নৃত্যের সয়লাব করেছে। আল্লামা সাঈদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে ইসলাম ও মুসলমানদের হদয়ে কুঠারাঘাত করা হয়েছে। সাঈদী যে যুদ্ধাপরাধী নন তার দাতঁভাঙ্গা জবাব জিয়ানগরবাসী বিগত উপজেলা নির্বাচনে তার পুত্র মাসুদ সাঈদীকে ব্যালট বিপ্লবের মাধ্যমে প্রমান করেছে।

তিনি বলেনÑসাঈদীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত অপশক্তির জন্য আইয়ুব, ইয়াহিয়া, স্বৌরাচার এরশাদের চেয়ে করুন পরিনতি অপেক্ষা করছে। কেননা আলেম ওলামায়েদের বিরুদ্ধে অবস্থান কারীদের উপর আল্লাহর গজব নেমে আসবে। কেউ রেহাই পায়নি বাকশালী ফ্যাসীবাদি অপশক্তি নিস্তার পাবেনা। ডাঃ ইরান জিয়ানগরের সর্বস্তরের জনগন ও বিশ্বব্যাপী সাঈদীভক্তদের বলেন-আল্লামা সাঈদীর বিরুদ্ধে সরকারের চলমান নাস্তিক্যবাদী ষড়যন্ত্রের কোন অপোষ নেই। আল কোরআনের কোকিলকে নবীপ্রেমিকদের মাঝে ফিরিয়ে আনতে হবে।

তিনি আজ (শনিবার) বেলা ১২টায় মেজর জলিল মিলনায়তনে জিয়ানগর উপজেলা জাতীয়তাবাদী পরিষদ আয়োজিত নবনির্বাচিত উপজেলার চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাসুদ সাঈদীর সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তাব্যে একথা বলেন।

পরিষদের সভাপতি মোঃ আল আমিনের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ সম্পাদক কর্নেল (অবঃ) শাহজাহান মিলন। বক্তাব্যরাখেন সংবর্ধিত উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাসুদ সাঈদী, জেলা বিএনপি নেতা ব্যারিষ্টার সরোয়ার হোসেন, এফ এম এ হায়দার, বরিশাল ফাউন্ডেশনের পরিচালক মোঃ ফারুক রহমান, এমদাদুল হক, আমিনুল ইসলাম,কাউখালী জাতীয়তাবাদী পরিষদ সভাপতি এডভোকেট মোস্তাক হোসেন প্রমুখ।

প্রধান বক্তা কর্নেল মিলন বলেন, সরকার গুম খুন অপহরন হামলা মামলা গ্রেফতার নির্যাতনের মাধ্যমে বিরোধী শক্তিকে নিচিহ্ন করতে চায়। সাঈদীর বিরুদ্ধে সরকার রাজনৈতিক কারনে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। সরকার মানবতাবিরোধী অপরাধের নামে বিচার করলেও তারা নিজেরা জঘন্য ভাবে মানবতাবিরোধী অপরাধ করছে। জনগনের সরকার কায়েম হলে তাদেরকেও একদিন হত্যা গুম অপহরনসহ মাবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।

মাসুদ সাঈদী বলেন- জিয়ানগরবাসী যে আল্লামা সাঈদীর আপনজন  তা ব্যালটের মাধ্যমে প্রমান করেছে। আমার আব্বা আজ সরকারের প্রতিহিংসার রাজনীতির শিকারে পরিনত হয়েছে। তার যুদ্ধাপরাধ বা মানবতা বিরোধী অপরাধের সাথে বিন্দুমাত্র সংশ্লিষ্টতা ছিলনা। জিয়ানগরের জনগনের কাছে কৃতজ্ঞ তারা সাঈদীকে প্রানের চেয়ে বেশী ভালবাসেন। তাই সরকারের কাছে আহব্বান জানাই আল্লামা সাঈদীকে সকল মিথ্যা ও হয়রানী মুলক মামলা প্রত্যাহার করে  নিঃশর্ত মুক্তি দিন।

সভা শেষে আল্লামা সাঈদীর সুস্থতা ও মুক্তি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন ওলামা ফোরাম নেতা মাওলানা আনোয়ার হোসাইন জেহাদী।