সরকারের প্রস্তাবিত বাজেটে ধনিক শ্রেনীর স্বার্থ রক্ষা হবে : ন্যাপ

indexবর্তমান অননির্বাচিত সরকারের প্রস্তাবিত ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেট ধনিক শ্রেনীর স্বার্থ রক্ষা রক্ষা করবে। প্রস্তাবিত বাজেট ধনিক শ্রেনীর স্বার্থ রক্ষার জন্য গতানুগতিক বাজেট। বাজেট প্রস্তাবনার বক্তব্য কথার ফুলঝুড়ি ও মিথ্যার আশ্বাসে ভড়রা। এই বাজেট মূল্যস্ফীতি ও জনগনের দুর্দশা বাড়াবে এবং লুটপাটের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ ন্যাপ নেতৃবৃন্দ।

আজ শুক্রবার বিকালে ‘সরকারের প্রস্তাবিত বাজেট সম্পর্কে’ বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ আয়োজিত মূল্যায়ন সভায় ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি‘র সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম সারওয়ার খান, ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ বেনজির আহমেদ, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ শাহজাহান সাজু, স্বপন কুমার সাহা, মোড়ল আমজাদ হোসেন, সহ-মহাসচিব মোঃ রাশেদ উদ্দিন ফয়সাল, সম্পাদক মোঃ শহীদুননবী ডাবলু, মোঃ কামাল ভুইয়া, আবদুল কাইয়ুম মাহমুদ, সহ-সম্পাদক মোঃ শামিম ভুইয়া, মোঃ মশিউর রহমান প্রমুখ।

সভায় অভিমত প্রকাশ করা হয় যে, এই বাজেট রাষ্ট্রব্যবস্থাপনার দুর্বলতা, সরকারের অদক্ষতা, দুর্নীতি-দুবৃর্ত্তায়ন ও দলীয়করনের কারণে ঘোষিত বাজেট বাস্তবায়ন সম্ভব হবে না। ঘাটতি পূরনের জন্য দেশের ব্যাংক ও ননব্যাংকিং খাত থেকে অধিক ঋণ নেয়ার প্রস্তাবনা দেশে বিনিয়োগ পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্থবির হয়ে যাবে। মূল্যস্ফীতির ফলে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাবে। জ্বালানীর মূল্যবৃদ্ধির যে ইংগিত দেয়া হয়েছে তাতে পরিবহন ভাড়া, যাত্রীভাড়া ও শিল্প-কলকারখানার উৎপাদন খরচ বৃদ্ধি পাবে। এর ফলে নেতিবাচক প্রভাবে জনজীবনে দুর্ভোগ নেমে আসবে।

সভায় আরো অভিমত প্রকাশ করা হয় যে, কালো টাকা সাদা করার সুযোগ অব্যাহত রেখে লুন্ঠন ও অনৈতিকতাকে উৎসাহিত করা হয়েছে। সবমিলিয়ে জনগনের ট্যাক্সের টাকায় দেশী-বিদেশী লুটপাটকারীদের পকেট ভারী করাই প্রস্তাবিত বাজেটের মূল লক্ষ্য। এ বাজেট ধনী-দরিদ্রের ব্যবধান বাড়াবে।