কক্সবাজারে আদম পাচার মামলার আসামী অপহরণের শিকার

coxএম.শাহজাহান চৌধুরী  শাহীন, কক্সবাজার :

মালয়েশিয়া আদম পাচারকারী দলের সক্রিয় সদস্য ও পাচার মামলার আসামী কক্সবাজর পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের কুতুবদিয়াপাড়ার  বাসিন্দা দস্তগীর আলম অপহরণের শিকার  হয়েছেন। এমন অভিযোগ তুলে তার ছোট ভাই কক্সবাজার সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগও দিয়েছেন। তবে এ ধরনের ঘটনাটি পুলিশ নয় এলাকাবাসি এমনকি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও জানেন না।

থানায় লিখিত অভিযোগে জানা যায়, পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের মধ্যম কুতুবদিয়াপাড়ার রশিদ আহম্মদের ছেলে দস্তগীর আলম গত ৩ জুন দুপুর ২টার দিকে বাড়ী হতে বের হয়। পরে আর বাড়ীতে আর ফিরে আসেনি।

অভিযোগে দাবী করা হয়, ওই দিন সন্ধ্যা ৭টার দিকে দস্তগীর আলম এর মোবাইল ফোন থেকে পিতার মোবাইলে ১ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করা হয়। পরে ৫ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো হয়। এর পরেও অপহরণকারী চক্র তাকে অমানবিক নির্যতন করা হয় বলে অভিযোগে দাবী করা হয়।

অপহরণকারীদের কবল থেকে উদ্ধারের দাবী জানিয়ে কথিত অপহৃত দস্তগীর আলমের ছোট ভাই এস্তগীর আলম আজাদ বাদী হয়ে গত ৪ জুন কক্সবাজার মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। ঘটনাটি তদন্ত করছে সদর মডেল থানার এসআই কামাল।

এদিকে, অভিযোগ উঠেছে কথিত দস্তগীর আলম একজন মালয়েশিয়া আদম পাচারকারী দলের সদস্য।

সাগর পথে মালয়েশিয়ায় আদম পাচারের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় গত ৮মে দায়েরকৃত মামলা নং-১৯, জিআর-৩২৬/১৪ইং মামলার এজাহারভুক্ত ৮ নং আসামী হচ্ছে এই দস্তগীর আলম । কিন্তু প্রকাশ্যে এলাকায় ঘুরাফেরা করলেও রহস্য জনক কারণে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেনি।

তার বিরুদ্ধে রয়েছে ইয়াবা ব্যবসার অভিযোগ। ইয়াবা দেওয়ার নামে শহরের একটি চক্রের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে পরবর্তীতে ইয়াবা না দেওয়ায় ওই চক্রটি তাকে অপহরণ করেছে বলে ধারণা করছে এলাকার লোকজন।

অপরদিকে, ওই আদম পাচারকারী দস্তগীর আলমকে অপহরণের ঘটনাটি এলাকাবাসি এমনকি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিও জানেন না। তবে এলাকার লোকজন ধারণা করছে এই ঘটনাটি নাটকীয়ও হতে পারে।

কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ জানিয়েছে, অভিযোগের ব্যাপারে তদন্ত করা হচ্ছে।