লালমনিরহাটের আদিতমারী স্বর্নামতি ব্রীজটি হুমকির মুখে

lalmonirhat-10এস,এম সহিদুল ইসলাম,লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কে হুমকির মূখে পড়েছে স্বর্ণামতি সেতু। যে কোন মূহুর্তে ঘটতে পারে মারাত্বক দূর্ঘটনা। হতে পারে অনেক মানুষের প্রানহানী। সেতুটি বর্তমানে মরন ফাঁদে পরিনত হয়েছে। প্রাচীন সেতু হওয়ায় সেতুটি বর্তমানে ঝুকিপূর্ন অবস্থায় রয়েছে। যে কোন সময় সেতুটি ভেঙ্গে পড়লে বিছিন্ন হয়ে পড়বে বুড়িমারী স্থল বন্দরসহ জেলার ৪টি উপজেলার সাথে সারা দেশের সড়ক যোগাযোগ। এ সেতুর উপর দিযে প্রতিদিন হাজার হাজার যানবাহন চলাচল করছে। ৬০ বছরের পুরনো স্বর্ণমতি সেতুটি ভেঙ্গে নতুন  রুপে একটি  সেতু নির্মানের দাবী অত্র জেলার জনগনের।

জানা যায়, লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কে স্বর্নামতি সেতুটি ১৯৬০ সালে নির্মান করা হয়।  স্বর্নামতি নদীর উপর সেতুটি নির্মান হওয়ায় এর নাম করন করা হয় র্স্বনামতি সেতু। জেলার ৪টি উপজেলার সাথে সড়ক পথে চলাচলের একমাত্র রাস্তা এ সেতুর উপর দিয়ে। সেতুটি নির্মান করার পর এ পর্যন্ত করা হয়নি কোন সংস্কার। সেতুর পিলার ও সেতুর উপরিভাগ ধষে পড়েছে। ব্রীজের রেলিংও ভেঙ্গে পড়েছে। ব্রীজটির বিভিন্ন জায়গায় ফাটল ধরেছে। লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগ সেতুটি ঝুকিপূর্ন সেতুতে চিহ্নিত করার পরেও বেহাল দশায় রয়েছে এ সেতুটি। প্রতিদিন স্থল বন্দর থেকে পন্যবাহী শতশত ট্রাক স্বর্ণমতি ব্রীজ পার হয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে যাওয়া আসা করে।  যে কোন ধরনের দূর্ঘটনা, প্রাণহানী এড়াতে দ্রুত সেতুটির মেরামত কিংবা নতুন সেতু নির্মান জরুরী হয়ে পড়েছে।এ সেতুর উপর দিয়ে জেলার পাটগ্রাম, হাতিবান্ধা, কালীগঞ্জ ও আদিতমারী উপজেলার কয়েক লক্ষ মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে। সেতুর চারিদিকে বড় বড় ফাটল সৃষ্টি হয়ে পড়ায় ট্রাক ও বাস সেতুর উপর উঠলেই কেপে উঠে সেতুটি।

লালমনিরহাট সড়ক ও জনপথ বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী সুরুজ মিয়া জানান, সেতুটি নির্মানের জন্য জাইকা প্রতিষ্ঠান জরিপ করছে, জরিপ কাজ শেষ হলেই আগামী বছরের প্রথম মাসে টেন্ডার আহবান করা হবে। তিনি আরও জানান, যে কোন ধরনের দূর্ঘটনা এড়াতে প্রয়োজন দ্রুত নতুন একটি সেতু নির্মান। তিনি এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।