সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে, ডাকাতি এক নারী খুন

sunamganj-18অরুন চক্রবর্তী, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে ডাকাতদের হাতে প্রাণ গেল ৭ সন্তানের জননী শাহেদা খানমের। ডাকাতরা মহিলার হাত পা বেধে ধারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে স্বর্নালংকারসহ ঘরের মূলবান মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি উপজেলার মীরপুর ইউনিয়নের আটঘর নোয়াবাড়ি শুক্রবার রাতে ঘটেছে।  ধারণা করা হচ্ছে ডাকাতি করতে এসে চিনে ফেলায়  দুর্বৃত্তরা তাকে খুন করেছে । শনিবার পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্র জানায়, ওই গ্রামের মৃত যুক্তরাজ্য প্রবাসি আলাউদ্দিন খানের স্ত্রী সাত সন্তানের জননী শাহেদা খানম (৫৫) শুক্রবার রাতে খাওয়া ধাওয়া শেষে প্রতিদিনের ন্যায় নিজ শয়ন কক্ষে ঘুমিয়ে পড়েন। রাতে দুর্বৃত্তরা ঘরের পিছনের ভেন্ডিলেটার ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে তাকে হত্যা করে স্বর্ণালংকার সহ  মূল্যবান মালামাল নিয়ে  যায়। ধারনা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তদের চিনে ফেলায় দুর্বৃত্তরা তাকে হাত পা বেধে খুন করে স্বর্নালংকার সহ মালামাল নিয়ে নিবিঘেœ পালিয়ে যায়। পরিবারের অন্যান্যা সদস্যরা কেউই টের পাননি এ হত্যাকান্ডের। সকালে কাজের ডাকতে গিয়ে হাত পা বাধা রক্তাক্ত লাশ দেখে চিৎকার দেয়। তার চিকিৎসারে পরিবারের অন্যান্যা সদস্যরা ঘটনাস্থলে ছুঠে আসেন। পরে থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করা হয়। পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরির্দশন করে লাশ ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠিয়েছে। নিহত মহিলার ৫ পুত্র ও ২ মেয়ের রয়েছে। এর মধ্যে ২ পুত্র ও ২ মেয়ে লন্ডনে অবস্থান করছে। বাড়িতে রয়েছেন ৩ পুত্র। জগন্নাথপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির জানান, ধারনা করা হচ্ছে চুরি করতে এলে দুর্বৃত্তদের ওই নারী চিনে ফেলায় তাকে  হত্যা করে পালিয়ে যায়। ঘরের আসবাপত্র তছনছ অবস্থায় পাওয়া গেছে। কী পরিমাণ মালামাল খোয়া গেছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ নিহতের লাশ  শনিবার উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।##