শিশু শিকারি রাষ্ট্রদূত

25712_rstবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : ইটালির এক কূটনীতিক ফিলিপাইন্সে গ্রেপ্তার হয়েছেন৷ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, দরিদ্র পরিবারের তিনটি শিশুকে তিনি যৌন নির্যাতন করেছেন৷ অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাঁকে দীর্ঘ কারাবাস বরণ করতে হতে পারে৷ দিন আগেও তুর্কমেনিস্তানে ইটালির রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বে ছিলেন দানিয়েল বসিয়ো৷ ৪৬ বছর বয়সি এই কূটনীতিক গত মাসে ম্যানিলায় ছুটি কাটাতে গিয়ে পড়েছেন গ্যাঁড়াকলে৷ ফান পার্কে ফান করতে গিয়েছিলেন৷ সঙ্গে ছিল ৯ থেকে ১২ বছর বয়সি তিনটি শিশু৷ শিশুদের সঙ্গে পানিতে দাপাদাপি করেছেন অনেক৷ সেই ফাঁকে তাদের সঙ্গে নাকি তিনি আপত্তিকর আচরণ করেছেন৷ অভিযোগ উঠেছে এমনই৷ আর এই অভিযোগ তুলেছে ফিলিপাইন্সেরই এক শিশু অধিকার সংরক্ষণ সংস্থা৷
সংস্থাটির দাবি, ম্যানিলার কাছের এক ফান পার্কে শিশুদের সঙ্গে ইটালীয় কূটনীতিকের আপত্তিকর আচরণ করার দৃশ্য তাদের কর্মীরাই দেখেছেন৷ পুলিশও ইতিমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে তাঁকে৷ দানিয়েল বসিয়ো বলছেন, তিনি ওই তিন শিশুকে ফান পার্কে স্রেফ আনন্দ উপভোগে সহায়তা করছিলেন, আপত্তিকর কিছু করেননি৷ এভাবে অভিযোগ অস্বীকার করে অবশ্য লাভ হয়নি৷ কারণ, ইটালি সরকার ইতিমধ্যে রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব থেকে বহিষ্কার করেছে তাঁকে৷

আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে বিষয়টি৷ সেখানেও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বসিয়ো৷ তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে যে, বসিয়োর বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা৷ বাদি পক্ষের উকিল আগ্রিপিনো বেবে জানান, অভিযুক্ত কূটনীতিক এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের দাবি সত্যি নয়৷ বেবে-র দাবি, প্রাপ্ত তথ্য-প্রমাণ অনুযায়ী এটা পরিষ্কার যে, দানিয়েল বসিয়ো শিশুদের জননাঙ্গ বা যৌনাঙ্গে হাত বোলানো ছাড়াও এমন আরো কিছু কাজ করেছেন, যা নিঃসন্দেহে যৌন নিপীড়ন৷

আগ্রিপিনো বেবে মনে করেন, ফিলিপাইন্সের শিশু অধিকার আইন অমান্য এবং শিশু পাচার করার অপরাধে বসিয়োর কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত৷ এই দুটি অপরাধ প্রমাণিত হলে ইটালীয় এই কূটনীতিককে ছয় বছর থেকে যাবজ্জীবন কারাবাস ভোগ করতে হতে পারে৷