‘আওয়ামী লীগ জনআতঙ্কে ভুগছে’ : খালেদা

kelada-ziaবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগ নির্বাচনকে ভয় পায়। এজন্য তারা সকলের অংশগ্রহণে নির্বাচন চায় না। বিএনপির শক্তি জনগণ। আর আওয়ামী লীগ জনআতঙ্কে ভুগছে। গুম-খুন অপহরণ ও বিচারবর্হিভুত হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে মুন্সিগঞ্জ লঞ্চঘাটে জেলা বিএনপি আয়োজিত জনসভায় তিনি এসব কথা বলেন। বেগম জিয়া বলেন, আওয়ামী লীগ নিজেকে ধর্মনিরপেক্ষ বলে। কিন্তু নিজেরাই এটা বিশ্বাস করেনা। তারা শাপলা চত্ব¡রে এতিম আলেমদের হত্যা করেছে। হিন্দুদের মন্দির ভেঙ্গেছে, তাদের সম্পত্তি দখল করেছে। বিশ্বজিৎকে কুপিয়ে হত্যা করেছে। এইসব খুন ও হত্যার বিচার করা হবে। এর আগে এই সরকার ২১ বছর পর ক্ষমতায় এসেছিল। এবার ৪২ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না। সময় আসলে এই সরকারকে ঝেটিয়ে বিদায় করা হবে। দেশে গণতন্ত্র নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশে সবকিছু বন্ধ। আছে শুধু মিথ্যাচার আর অত্যাচার। এই সরকার কোন রকম টিকে আছে। উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা কি কেউ নিরাপদ? এই সরকারের আমলে আপনি, আমি কেউ নিরাপদ নই। এই সরকার যতদিন জবরদখল করে ওই চেয়ারে থাকবে ততদিন কেউ নিরাপদ নন। রানা প্লাজার ঘটনায় সরকার ক্ষতিগ্রস্থদের টাকা আত্মসাৎ করেছে দাবি করে তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান গার্মেন্টস শিল্প চালু করেছিলেন, বর্তমান সরকার গার্মেন্টস শিল্পকে ধ্বংস করে দিয়েছে। দেশের অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়েছে। রানা প্লাজার ঘটনা বিদেশীদের ধারণা বদলে দিয়েছে। রানা প্লাজার নামে দেশে-বিদেশে বহু সাহায্য উঠানো হয়েছে। কিন্তু ক্ষতিগ্রস্থদের সেই সাহায্য দেয়া হয় নাই। র‌্যাব প্রসঙ্গে বিএনপি নেত্রী বলেন, র‌্যাব যে উদ্দেশ্যে গঠন করা হয়েছিল তা তখনকার অবস্থার জন্য ঠিক ছিল। এই সরকার র‌্যাবকে নষ্ট করেছে, পঁচিয়ে ফেলেছে। এই বাহিনী বর্তমানে ক্যান্সারে পরিণত হয়েছে। তাই র‌্যাবকে সংস্কার করে, একে বাঁচিয়ে রেখে লাভ নেই। এদের কোন পরিবর্তন হবে না। অবিলম্বে র‌্যাব বিলুপ্তির দাবি জানান তিনি। খুনের সঙ্গে জড়িত র‌্যাব সদস্যদের শাস্তি দাবি করে তিনি বলেন, বাংলাদেশের আইনে খুনের শাস্তি যা হয়, সেই সর্বোচ্চ শাস্তিই তাদের দিতে হবে। এই সরকার তাদেরকে শাস্তি না দিলে পরবর্তীতে যে সরকার আসবে তারা তাদের শাস্তির ব্যবস্থা করবে। তারা কার জামাই তা দেখা হবে না।