রাবিতে আবাসিক হলে নিষ্ফল তল্লাশি,আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

indexমারুফুল ইসলাম লিমন, রাবি প্রতিনিধিঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালেেয় (রাবি) শিবিরকর্মীদের আটক করতে শহীদ শামসুজ্জোহা হলে রাতভর ব্যাপকহারে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে এ তল্লাশি চালালেও কাউকে আটক বা কোনো কিছু উদ্ধার করতে পারেনি।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়,এর আগে গত বছরের ডিসেম্বর হতে এ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হলে দুইবার, সোহরাওয়ার্দী হলে দুইবার, আমির আলী হলে একবার, নবাব আব্দুল লতিফ হলে দুইবার এবং শাহ মখদুম হলে চারবার এমন নিস্ফল অভিযান চালায় পুলিশ। তবে বারবার এরকম ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে শ্বাস রুদ্ধকর সময় পার করে। এমন তল্লাশির ঘটনায় পড়াশোনায়ও ব্যাঘাত ঘটছে বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন।

হলের কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থী জানায়, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শহীদ শামসুজ্জোহা হলের এক ছাত্রলীগ নেতাকে শিবিরের কর্মীরা ধাওয়া দিয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাত ২টার দিকে হলে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এসময় পুলিশ শিক্ষার্থীদের সাথে ধমকের সুরে কথা বলে বলেও শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন। দীর্ঘ এক ঘন্টা তল্লাশীর পর কাউকে আটক বা কোন কিছু উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, ‘শিবিরের কয়েকজন বহিরাগত ক্যাডার জড়ো হয়ে রাবি ছাত্রলীগের গত কমিটির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোবাশ্বির আহমেদ তামিমকে ধাওয়া দিয়েছে।’

বারবার এরকম নিস্ফল তল্লাশির ব্যাপারে জানতে চাইলে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, শিবির নাশকতা ছড়াতে পারে এমন সংবাদে ভিত্তিতে ওই হলে মতিহার থানা পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছে। তবে কোন শিবিরকর্মীকে আটক করা সম্ভব হয় নি বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘হলের এক ছাত্রকে ধাওয়া দেয়া হয়েছে শুনে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে পুলিশ হলে তল্লাশি চালিয়েছে।’ রাবিতে আবাসিক হলে নিষ্ফল তল্লাশি আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা

মারুফুল ইসলাম লিমন, রাবি প্রতিনিধিঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালেেয় (রাবি) শিবিরকর্মীদের আটক করতে শহীদ শামসুজ্জোহা হলে রাতভর ব্যাপকহারে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে এ তল্লাশি চালালেও কাউকে আটক বা কোনো কিছু উদ্ধার করতে পারেনি।

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়,এর আগে গত বছরের ডিসেম্বর হতে এ পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হলে দুইবার, সোহরাওয়ার্দী হলে দুইবার, আমির আলী হলে একবার, নবাব আব্দুল লতিফ হলে দুইবার এবং শাহ মখদুম হলে চারবার এমন নিস্ফল অভিযান চালায় পুলিশ। তবে বারবার এরকম ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা আতঙ্কে শ্বাস রুদ্ধকর সময় পার করে। এমন তল্লাশির ঘটনায় পড়াশোনায়ও ব্যাঘাত ঘটছে বলে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন।

হলের কয়েকজন আবাসিক শিক্ষার্থী জানায়, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে শহীদ শামসুজ্জোহা হলের এক ছাত্রলীগ নেতাকে শিবিরের কর্মীরা ধাওয়া দিয়েছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাত ২টার দিকে হলে তল্লাশি চালায় পুলিশ। এসময় পুলিশ শিক্ষার্থীদের সাথে ধমকের সুরে কথা বলে বলেও শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন। দীর্ঘ এক ঘন্টা তল্লাশীর পর কাউকে আটক বা কোন কিছু উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, ‘শিবিরের কয়েকজন বহিরাগত ক্যাডার জড়ো হয়ে রাবি ছাত্রলীগের গত কমিটির গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোবাশ্বির আহমেদ তামিমকে ধাওয়া দিয়েছে।’

বারবার এরকম নিস্ফল তল্লাশির ব্যাপারে জানতে চাইলে মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন জানান, শিবির নাশকতা ছড়াতে পারে এমন সংবাদে ভিত্তিতে ওই হলে মতিহার থানা পুলিশ তল্লাশি চালিয়েছে। তবে কোন শিবিরকর্মীকে আটক করা সম্ভব হয় নি বলে জানান তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘হলের এক ছাত্রকে ধাওয়া দেয়া হয়েছে শুনে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে পুলিশ হলে তল্লাশি চালিয়েছে।’