পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে কয়লা উত্তোলন সাময়িক বন্ধ

PIC-01বদরুদ্দোজা বুলু, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির ভূগর্ভে হঠাৎ করে পানির প্রবাহ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ায় কয়লা উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। ৮/১০ দিনের মধ্যে পানি প্রবাহ স্বাভাবিক হয়ে কয়লা উত্তোলন শুরু করা সম্ভব হবে বলে খনি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

আজ শুক্রবার খনি সুত্রে জানা গেছে, গত ২৪ মার্চ খনির ভূগর্ভে ১২০৬ নম্বর কোল ফেজ থেকে উত্তোলনযোগ্য কয়লার মজুদ শেষ হয়ে য়ায়। এরপর গত এপ্রিল মাসে ১২০৬ নম্বর কোল ফেজ থেকে কয়লা উৎপাদন যন্ত্রপাতি সরিয়ে নতুন ১২০৫ নম্বর ফেজে বসিয়ে পরীক্ষমুলক কয়লা উত্তোলন শুরু করা হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শর্তে খনির এক কর্মকর্তা জানান, নতুন ১২০৫ নং কোল ফেজে পরীক্ষমুলক উৎপাদন শুরুর ১০-১১ দিনের মাথায় গত ১০ মে কয়লা কাটার সময় হঠাৎ করে কোল ফেজের উপরের পানির স্তর ভেঙ্গে পড়ে এবং খনি ভূগর্ভে পানির প্রবাহ বেড়ে যায়। ফলে কর্তৃপক্ষ কয়লা উত্তোলন বন্ধ করে দেয়। অপর এক কর্মকর্তা বলেন, কোল ফেজে কয়লা স্তরের মধ্যে কিছু কিছু স্থানে বড় বড় পানির পকেট থাকে। কয়লা কাটার সময় এসব পকেট ভেঙ্গে গেলে পানি প্রবাহ বেড়ে যায়। এদিকে, বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির জেনারেল ম্যানেজার (মাইনিং) প্রকৌশলী হাবিব উদ্দিন আহমেদ মাত্রাতিরিক্ত পানির প্রবাহের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গত ৭মে থেকে কয়লা উত্তোলন সাময়িকভাবে স্থগিত করা হয়েছে। ওদিকে, কয়লা কাটার সময় পানি প্রবাহ বেড়ে যাওয়া খনির ক্ষেত্রে এটি স্বাভাবাবিক ঘটনা বলে মনে করেন খনির কয়েক কর্মকর্তা। আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যে কয়লা উত্তোলন শুরু হবে আশা করছেন খনি কর্তৃপক্ষ।