গুম খুন অপহরন করে সরকারের পতন ঠেকানো যাবে না : লেবার পার্টির

DSC_488741লেবার পার্টির প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা আবদুল মতীনের মৃত্যুবাষীকির আলোচনায় ১৯ দলীয় জোট নেতৃবৃন্দ বলেছেন- সরকার গুম খুন অপহরন হত্যা নির্যাতন নিপীড়নের মাধ্যমে ১৯ দলীয় জোটের গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রাম মোকাবেলা করছে। র‌্যাব পুলিশের পরিচয়ে গ্রেফতার করে রাজনৈতিক নেতা-কমীদের হত্যা করছে। সরকারের নগ্ন দলীয় করনের কারনে র‌্যাব আজ ভাড়াটে হত্যাকারী বাহিনীতে পরিনত হয়েছে। র‌্যাবের নিষিদ্ধ আজ সমায়ের দাবীতে রূপ নিয়েছে। শেখ মুজিব রক্ষীবাহীনিকে  দিয়ে জাসদের  গনতন্ত্রকামী ৩৮ হাজার নেতা-কমীকে হত্যা করে  ক্ষমতা চিরস্থায়ী করতে চেয়েছিল, শেখ হাসিনাও র‌্যাব পুলিশ বিজিবিকে  দলীয় ক্যাডার বাহীনিতে পরিনত করে  দেশব্যাপী রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস কায়েম করেছে। ৫ জানুয়ারী প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে দখলদার সরকার দেশে নাভিশ্বাস সৃষ্টি করেছে। জনগন আওয়ামী দুঃশাসন থেকে মুক্তি চায়। তাই গুম খুন অপহরনের মাধ্যমে সরকার পতন ঠেকানো যাবে না।

নেতৃবৃন্দ বলেন- ভারতীয় আগ্রাসনের বিরূদ্ধে মাওঃ মতীন ছিনে সোচ্চার। শোষনমুক্ত ইনসাফ ভিত্তিক সাম্যবাদী সমাজ গড়তে তিনি লেবার পার্টি প্রতিষ্ঠা করেন। শ্রমজীবি মেহনতি মানুষের কল্যানে সংগ্রামীদেও কাছে মাওলানা মতীন চেতনার বাতিঘর। আধিপত্যবাদী ভারতের পানি আগ্রাসনের বিরূদ্ধে ফাকাক্কা লংমার্চ কর্মসূচীতে মাওলানা ভাষানীর সাথে মাওলানা মতীনের সাহসী ভূমিকাও চিরস্মরনীয় হয়ে থাকবে। তাই লেবার পার্টির নেতা-কমীদের ফ্যাসীবাদী বাকশালীদেও বিরূদ্ধে প্রতিরোধ সংগ্রাম গড়ে তুলতে হবে।

আজ (১৬ মে শুক্রবার) বিকাল ৪ টায় মেজর জলির মিলনায়তনে শোষনমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠায় মাওঃ মতীনের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা সভা লেবার পাটির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তাব্য রাখেন ১৯ দলীয় জোটনেতা, খেলাফত মজলিসের আমীর মাওলানা মোহাম্মদ ইসহাক, ইসলামী ঐক্যজোট চেয়ারম্যান মাওঃ আবদুল লতিফ নেজামী, বিএনপি চেয়ারর্পাসনের উপদেষ্টা ব্যারিষ্টার এম হায়দার আলী, জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, এনডিপি চেয়ারম্যান গোলাম মতর্’জা, মুসলীম লীগ সভাপতি কামারূজ্জামান, পিপলস লীগ সভাপতি এড. গরীবে নেওয়াজ, বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক কৃষিবীদ শামিমুর রহমান শামীম, লেবার পার্টির মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, এনপিপি মহাসচিব এড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, ইসলামিক পার্টির মহাসচিব এম এ রশিদ প্রধান, লেবার পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার ফরিদ উদ্দিন, জাহাংগীর আলম প্রধান, এমদাদুল হক চৌধুরী, মোসলেম উদ্দিন, মুহাঃ আবদুর রাজ্জাক, সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ফারূক রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব এড. আমিনুল ইসলাম রাজু, নুরুল ইসলাম সিয়াম মোঃ শামসুদ্দিন পারভেজ, মাহমুদ খান, কুমিলা মহানগর সভাপতি অধ্যাপক মহসিন ভূইয়া, নাঃগঞ্জ জেলা সভাপতি আনোয়ার হোসেন প্রচার সম্পাদক আবদুর রহমান খোকন, মহিলা সম্পাদিকা মিসেস শামিমা চৌধুরী,ওলামা ফোরাম নেতা মাওলানা আনোয়ার হোসেন, শিক্ষকনেতা মিজানুর রহমান, শ্রমিক কর্মচারী ঐক্যজোটের মহাসচিব শাহিন আলম মতীন, যুবফোরাম আহবায়ক হুমায়উন কবীর বক্তাব্য রাখেন।