মনপুরায় আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাসকারী পরিবারের দুঃখ দুর্দশা দেখার যেন কেউ নেই

SAMSUNG CAMERA PICTURESমোঃ ছালাহউদ্দিন,মনপুরাপ প্রতিনিধি :

ভোলার মনপুরায় আশ্রয়ন প্রকল্পে বসবাসকারী হত দরিদ্র ৮০টি পরিবার জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে দুঃখ দুর্দশার মধ্যে দিনাতিপাত করছেন। আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মানের পর থেকে অদ্যবদি পর্যন্ত কোন মেরামত বা সংস্কার করা হয়নি। আশ্রয়ন প্রকল্পের বসবাসকারী হত দরিদ্র মানুষের অভিযোগ জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনের কর্তাব্যাক্তিদের তাদের বসবাসকারী আশ্রয়ন বসবাসের অযোগ্য ও সমস্যার কথা বার বার জানালেও আজ পর্যন্ত মেরামত বা সংস্কারের কোন উদ্যোগ দেখা যায়নি। বাধ্য হয়ে হত দরিদ্র মানুষগুলো ভাঙ্গা ঘরে কোন মতে মাথা গোজার ঠাই নিচ্ছেন। এদের যেন দুঃখ দুর্দশা দেখার কেউ নেই।

বসবাসকারী পরিবারগুলোর সাথে কথা বলে জানা যায় সরকার সেনাবাহিনী কর্তৃক ২০০০সালে সোনার চর,চরযতিন(বিশ কলনী) ও আলম নগর আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মান করেন। নির্মানের পর ৮টি ইউনিটে ভুমিহীন ৮০ পরিবারকে বসবাসের জন্য ঘর বরাদ্ধ দেয়। বরাদ্ধ পাওয়ার পর থেকে ভুমিহীন অসহায় এসব হত দরিদ্র মানুষগুলো পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছেন। নির্মানের ১৩ বছর পার হলেও এখনও এসব আশ্রয়ন প্রকল্প কোন মেরামত বা সংস্কার করা হয়নি। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রোদ্র ও বৃষ্টিতে ভিজে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের নিয়ে দুঃখ কষ্টের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন এসব আশ্রয়ন প্রকল্পের হত দরিদ্র মানুষগুলো।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়া,আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘরগুলোর খুঁটি(পিলার)সম্পুর্ন মরিচা ধরে খসে খসে ধসে পড়ছে। ঘরগুলো সামনে থেকে মোটা মুটি ভালো দেখা গেলেও ভিতরে ঢুকলে দেখা যায় মাথার উপরের টিন  মরিচা ধরে অসংখ্য ছিদ্র হয়ে গেছে। ঘরের দরজা জানালা,ভেড়া সম্পুর্ন ভাঙ্গা। সামান্য বৃষ্টি হলে চালের উপর থাকা ভাঙ্গা ও ছিদ্র টিন দিয়ে পানি পড়ে। ঘরে থাকা চাউল,ঢাল,শুকনো খাবারসহ জামা কাপড় ভিজে যায়। বর্ষাকালে রাতে বৃষ্টি হলে সারা রাত জেগে চৌকি(খাঁটের) উপর পলিথিন দিয়ে ছেলে মেয়েদের নিয়ে কোন মতে জীবন কাটায়।  সংসারের অভাবের কারনে পরিবার পরিজনের ভরন পোষন জোগাড় করে এসব অসহায় মানুষগুলো ঘর মেরামত করা তাদের পক্ষে সম্ভব হয়ে উঠেনা। রোদ্রে পুড়ে বৃষ্টিতে ভিজে আশ্রয়ন প্রকল্পের অসহায় মানুষগুলো দুঃখ কষ্ঠের মধ্যে কোন রকম জীবন কাটাচ্ছেন। সোনারচর আশ্রয়ন প্রকল্পের ভুক্তভোগী হাজেরা খাতুন,রোকেয়া বেগম,নাসিমা,ফাতেমা,মোঃ আবুতাহের,মোঃ জসিম,মাহমুদা খাতুন,মাইনুর,পিয়ারা,লাইজু ও আশ্রয়ন প্রকল্পের সভাপতি আবুল কাশেম বলেন,আমরা গরীব মানুষ। সরকার আমাদেরকে আশ্রয়নে আশ্রয় দিয়েছে। আংগো ঘরগুলোর উপরের টিনের চাল মরিচা ধরে সম্পুর্ন ছিদ্র হয়ে গেছে। বর্ষাকালে বৃষ্টি হলে ঘরে থাকা যায়না। উপর থেকে পানি পড়ে ভিজজা যায়। পোলাইন ছাইনগুলো নিয়া খুব কষ্টে আছি। আমারা বেকেরে জানাইছি। ভোট আইলে বেকে দেইখা যায়। ভোট শেষ হলে আংগোরে ভুইলা যায়। আংগোরে দেহার যেন কেউ নাই। আশ্রয়ন প্রকল্পের বসবাসকারী হত দরিদ্র মানুষগুলো আবেগ তাড়িত হয়ে এসব কথা বলেন।

এব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান মিসেস শেলিনা আক্তার চৌধুরী বলেন,আমি পরিবেশ ও বন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী আলহাজ্ব আবদুল্লাহ আলইসলাম জ্যাকবের সাথে আশ্রয়ন প্রকল্পের বসবাস কারী হত দরিদ্র মানুষের সমস্যাগুলো তুলে ধরে সমস্যা সমাধানের চেষ্ঠা করব। নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল বাকী বলেন,আশ্রয় প্রকল্পের সমস্যার কথা আমি শুনেছি। উপজেলা প্রকৌশলীকে ঘরগুলো মেরামত বা সংস্কার করা যায়কিনা সরজমিনে তদন্ত করে রির্পোট দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি। রির্পোট হাতে পেলেই প্রয়োজণীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।