দিল্লির ফলে ঢাকায় স্বস্তি

23653_aবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম :  ৭ই এপ্রিল থেকে ১২ই মে। এক মাসেরও বেশি সময়ের অপেক্ষা। এই সময়ে ভোটে ব্যস্ত ছিল ভারত। পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গণতান্ত্রিক নির্বাচন। সারা দুনিয়ার দৃষ্টি ছিল এই নির্বাচনে। নিকট প্রতিবেশী হিসেবে ভারতের নির্বাচন নিয়ে নানা হিসাব চলছে বাংলাদেশেও। হিসেবের পালা শেষ। এখন কেবলই বাস্তবতা। আলোচনায়, জরিপে এগিয়ে থাকা নরেন্দ্র মোদী যে ভারতের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন তা অনেকটাই স্পষ্ট ছিল। কিন্তু কংগ্রেসের এমন ভরাডুবি হবে তা হয়তো অনেকেই ভাবেননি। কোন জরিপেও এতোটা খারাপ ফলের আভাস মিলেনি। সাম্প্রদায়িকতার তকমা দিয়ে মোদীকে ঠেকানোর সব কৌশলই রপ্ত করে কংগ্রেস। কিন্তু ভোটের ফলে তার প্রভাব একেবারেই শূন্য। লোকসভা নির্বাচন শুরুর পর থেকেই বাংলাদেশের রাজনীতিতে এর কি প্রভাব পড়বে তা নিয়ে আলোচনা চলছে। আওয়ামী লীগ বলছে ভারতে সরকার পরিবর্তন হলেও বাংলাদেশে এর কোন প্রভাব পড়বে না। বিএনপি বলছে প্রতিবেশী দেশটির ক্ষমতার পালাবদলের প্রভাব পড়বে বাংলাদেশের রাজনীতিতে। কংগ্রেস ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সঙ্গে যে সম্পর্ক রক্ষা করেছে বিজেপি হয়তো ততোটা যাবে না। তারা দুই দেশের জনগণের প্রত্যাশার ভিত্তিতে সম্পর্ক রক্ষা করে চলবে। ভোটের ফল আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ হওয়ার আগেই দিল্লির মসনদ যে মোদীর তা নিশ্চিত হয়ে গেছে। চরম পরাজয়ে স্বাধ নিতে যাচ্ছে ভারতের সবচেয়ে পূরনো দল কংগ্রেস। নির্বাচন কমিশনের ফল ঘোষণার আগেই ভারতের আগামীর প্রধানমন্ত্রী ও তার দল বিজেপিকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে খালেদা জিয়াই প্রথম মোদীকে অভিন্দন জানালেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, ভারতের নির্বাচনের ফল বাংলাদেশের রাজনীতিতে বড় ধরনের প্রভাব ফেলবে। আর বিজেপি জোটের জয় ঢাকার জন্য স্থস্তির খবরও বটে। দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে ভারতে পূনরায় কংগ্রেস ক্ষমতায় আসলে এর প্রভাব পড়তো বাংলাদেশের ক্ষমতাসীন দল ও সরকারে। এতে করে বিরোধী জোটের ওপর নতুন করে দমন পীড়ন ও বাড়তো। এখন হয়তো এমনটি আর হবে না। কারণ বিজেপির জয় অস্বস্থির বার্তা নিয়ে এসেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জন্য। কংগ্রেসের সঙ্গে মধুর সম্পর্ক রক্ষা করে চলা আওয়ামী লীগকে এখন নতুন করে সম্পর্ক গড়তে হবে মোদীর সরকারের সঙ্গে। এই কাজটি তাদের জন্য চ্যালেঞ্জেরও বটে। তবে দেখার বিষয় মোদী তার পররাষ্ট্র নীতিতে কি পরিবর্তন আনেন। আর বাংলাদেশ নিয়ে তার অবস্থান কি হয়। অনেকে বলছেন, মোদীর ভুমিধ্বস উত্থানে কিছুটা হলেও পশ্চিমা প্রভাব আছে। যা তার বিদেশনীতিতেও প্রভাব ফেলবে। এই প্রভাব বাংলাদেশের ক্ষেত্রে পড়তে পারে। তা দেখার জন্য হয়তো আরও কয়েক দিন অপেক্ষা করতে হবে।