আটকের পর যশোর শিবির সভাপতির পায়ে গুলি করেছে পুলিশ

jahid-vi-injorযশোর প্রতিনিধি : ১৩মে ভোরে আটকের পর গভীর রাতে চোখ বেধে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে পায়ে বন্দুক ঠেকিয়ে গুলি করে আহত করা হলো ছাত্রশিবির যশোর শহর শাখার সভাপতি জাহিদুল ইসলামকে। গুলি করার পর জাহিদকে আহত অবস্থায় হ্যান্ডকাপ পরিয়ে যশোর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।
জানা যায়, মঙ্গলবার ভোরে মোটরসাইকলে চালিয়ে বাড়ীতে যাবার পথে ডিবি পুলিশ তাকে আটক করে। দিনভর ডিবি অফিসে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গভীর রাতে চোখ বেধে হ্যান্ডকাপ লাগিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে ঠান্ডা মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে জাহিদের পায়ে গুলি করা হয়। এসময় অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তিনি জ্ঞান হারান।
গতকাল ভোরে শিবির নেতা জাহিদকে আটক করা হলেও আটকের খবরটি অস্বীকার করে ডিবি পুলিশ। এমনকি তাকে কোন আদালতেও হাজির করা হয়নি। এ অবস্থায় শিবির নেতা জাহিদের সন্ধান চেয়ে সন্ধ্যায় যশোরে সংবাদ সম্মেলন করেন তার পরিবার। একই সাথে শিবিরের এ নেতাকে গ্রেফতারের প্রতিবাদ ও সন্ধানের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করে যশোর শিবির এবং কেন্দ্রীয় সংগঠনের পক্ষ থেকেও অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করা হয়। অবশেষে আজ পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে পুলিশী পাহারায় হাসপাতালের ফ্লোরে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার সন্ধান পাওয়া যায়।
গুলিবিদ্ধ শিবির নেতা  জাহিদুর রহমান  যশোর সরকারী এমএম কলেজ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভের পর এখন যশোর শহীদ মশিউর রহমান মহাবিদ্যালয়ে এলএলবি পড়ছেন।
এ নিয়ে গত ২২ দিনে যশোরে শিবিরের ছয়জন নেতাকর্মীকে গুলি করে আহত করেছে পুলিশ।