রাবিতে হুমুকি দিয়ে পরীক্ষা স্থগিত করল ছাত্রলীগ

rajsahiরাবি প্রতিনিধিঃ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা কেন্দ্রে তালা দিয়ে পরীক্ষা স্থগিত  করেছে ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুলাহ কলা ভবনের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগে এ ঘটনা ধটে ।

ঘটনাসুত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের মাস্টার্সের চৃুড়ান্ত পরীক্ষা নেয়ার জন্য একাডেমিক বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মেহেদী হাসান ওই বিভাগের মাস্টার্সের পরীক্ষার্থী ছিলেন। কিন্তু তার পরীক্ষার প্রস্তুতি না থাকায় তিনি অসুস্থতার কথা বলে পরীক্ষা বন্ধ করতে বিভাগকে অনুরোধ করেন।

তবে পূর্ব ঘোষিত একাডেমিক বৈঠকের সিদ্ধান্ত হওয়ায় একজনের জন্য তা না পিছিয়ে পরীক্ষা নেয়ার কথা বিভাগ থেকে জানিয়ে দেয়া হয়। এতে করে মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রানা চৌধুরী ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাকিম বিল্লাহর নেতৃত্বে ১৫-২০ নেতাকর্মী ২০৪ নম্বর কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেয়। এসময় তারা পরীক্ষা দিতে আসা অন্য শিক্ষার্থীদেরকেও পরীক্ষা না দেয়ার জন্য হুমকি দেয়।

ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রানা চৌধুরী বলেন, আমাদের এক বন্ধু অসুস্থ্য হওয়ায় বিভাগে এসে আমরা পরীক্ষা পেছানোর জন্য বলি। কিন্তু তারা আমাদের কথা শোনেনি। তবে তালা দেয়ায় বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা বলেন, সমস্যার কারণে যদি শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা না দিতে চায় তাহলে এটা একান্তই তাদের ব্যক্তিগত বিষয়। আর পরীক্ষা বন্ধ বা চালু করার বিষয়টি বিভাগের। ছাত্রলীগের কেউ যদি এতে বাধা দিয়ে থাকে তাহলে আমরা বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দা নূরে কাসেদা খাতুন পরীক্ষা স্থগিতের আগে  বলেন, ছাত্রলীগের এক নেতা অসুস্থতার কথা বলে আজকের পরীক্ষা বন্ধ করতে বলেছিল। কিন্তু এটা একাডেমিক মিটিং-এ সিদ্ধান্ত হওয়ায় আমরা পরীক্ষা বন্ধ করিনি। তবে ছাত্রলীগের বেশ কিছু ছেলে এসে আজ পরীক্ষার কক্ষে তালা মারলেও আমরা তা ভেঙ্গে ফেলে পরীক্ষা নিচ্ছি। অবশ্য এর কিছু সময় পরেই পরীক্ষা স্থগিত করা হয়।

তবে ছাত্রলীগের নেতা অসুস্থ্য থাকায় পরীক্ষা স্থগিত করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বিশ্ববিদ্যায়ের অন্যান্য বিভাগের সাধারণ শিক্ষার্থীরাও হতাশা প্রকাশ করেছেন।