র‍্যাবের তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ

hicourtবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ উঠার পর অবসরে পাঠানো সশস্রবাহিনীর তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। র‌্যাব-১১ এর সাবেক এই তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারে পদক্ষেপ নিতে স্বরাষ্ট্র সচিবকে বলা হয়েছে। দ-বিধির সুনির্দিষ্ট ধারায় অভিযোগ পাওয়া না গেলে তাদেরকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার করতে বলা হয়েছে। যাদের গ্রেপ্তার করতে বলা হয়েছে তারা হলেন র‌্যাব-১১ এর সাবেক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল তারেক সাঈদ মাহমুদ, মেজর আরিফ হোসেন এবং লেফটেন্যান্ট কমান্ডার এমএম রানা। বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার এবং বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল এ আদেশ দেয়। তিন কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তারের নির্দেশের পাশাপাশি মানুষের জীবনের নিরাপত্তা প্রশ্নে রুলও জারি করেছে হাইকোর্ট। রুলে সংবিধানের ৩১, ৩২, ৩৬, ৪২ এবং ৪৪ অনুচ্ছেদে বর্ণিত জনগণের মৌলিক অধিকার রক্ষায় পুলিশ, র‌্যাবসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পেশাগত দায়িত্ব পালনে বিদ্যমান আইন সংশোধন, হালনাগাদ করার নির্দেশ কেন দেয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে। এ ছাড়া জনগণের মৌলিক অধিকার রক্ষায় আইনের দুর্বলতা সংশোধন, দ্রুত ও যথাযথ পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তাও জানাতে বলা হয়েছে। দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, জনপ্রশাসন সচিব ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে নিহত চন্দন সরকারের জামাতা ডা. বিজয় কুমার পাল, নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন খান ও ‘আমরা নারায়ণগঞ্জ বাসী’র নির্বাহী সভাপতি মাহবুবুর রহমানের দায়ের করা একটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে হাইকোর্ট এ আদেশ দেয়। রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী ড. কামাল হোসেন।