কমলগঞ্জে গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা

Rapeকমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) উপজেলা সংবাদদাতা :
মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের ধুপাটিলা গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয়ে তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ব্যপারে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত লিখিত এজাহার সূত্রে জানা যায়, পতনঊষার ইউনিয়নের ধুপাটিলা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মো: আহমদ হোসেন খানের পুত্রবধু রিনা বেগম (৩৩) এর কুদৃষ্টি পড়ে পাশ্ববর্তী বখাটে নওশাদ মিয়ার। বখাটে নওশাদ গৃহবধু রিনা বেগমকে দীর্ঘদিন যাবত কুপ্রস্তাব সহ বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করে আসছিল। কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধু রিনা বেগমের স্বামী বেসরকারী দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মো: সুলেমান হোসেন খান বাড়িতে না থাকার সুযোগে গত ৫ মে বিকাল সোয়া ৫টায় বখাটে নওশাদ তার বসতঘরে প্রবেশ করে জোরপূর্ব্বক ধর্ষনের উদ্দেশ্যে ঝাপটাইয়া ধরে। এ সময় গৃহবধু আতœরক্ষার্থে ঘরের পিছন দিয়ে বের হয়ে গেলে তাকে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি, লাথি মারে। গৃহবধুর রিনার চিৎকারে নওশাদের সহযোগী জাবের মিয়া গংরা মিলে আবারো রিনার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে আহত করে। পরবর্তীতে চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে গৃহবধুকে উদ্ধার করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় সাথে সাথে গৃহবধু রিনা বেগম (৩৩) কে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গৃহবধুর স্বামী মাদ্রাসা শিক্ষক মো: সুলেমান হোসেন খান বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে গত ৫ মে রাতে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে আলাপকালে কমলগঞ্জ থানার ওসি মোঃ এনামুল হক বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের সত্যতা নেই। এছাড়া স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি আপোষ মীমাংসার মাধ্যমে দেখবেন বলে জানিয়েছেন।কমলগঞ্জে গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা

কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার) উপজেলা সংবাদদাতা :

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের ধুপাটিলা গ্রামে এক মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের গৃহবধুকে ধর্ষনের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে সন্ত্রাসী হামলায় আহত হয়ে তিনি এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ব্যপারে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

কমলগঞ্জ থানায় দায়েরকৃত লিখিত এজাহার সূত্রে জানা যায়, পতনঊষার ইউনিয়নের ধুপাটিলা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মো: আহমদ হোসেন খানের পুত্রবধু রিনা বেগম (৩৩) এর কুদৃষ্টি পড়ে পাশ্ববর্তী বখাটে নওশাদ মিয়ার। বখাটে নওশাদ গৃহবধু রিনা বেগমকে দীর্ঘদিন যাবত কুপ্রস্তাব সহ বিভিন্নভাবে উত্যক্ত করে আসছিল। কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গৃহবধু রিনা বেগমের স্বামী বেসরকারী দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক মো: সুলেমান হোসেন খান বাড়িতে না থাকার সুযোগে গত ৫ মে বিকাল সোয়া ৫টায় বখাটে নওশাদ তার বসতঘরে প্রবেশ করে জোরপূর্ব্বক ধর্ষনের উদ্দেশ্যে ঝাপটাইয়া ধরে। এ সময় গৃহবধু আতœরক্ষার্থে ঘরের পিছন দিয়ে বের হয়ে গেলে তাকে এলোপাথাড়ি কিল, ঘুষি, লাথি মারে। গৃহবধুর রিনার চিৎকারে নওশাদের সহযোগী জাবের মিয়া গংরা মিলে আবারো রিনার শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে আহত করে। পরবর্তীতে চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে গৃহবধুকে উদ্ধার করেন। গুরুতর আহত অবস্থায় সাথে সাথে গৃহবধু রিনা বেগম (৩৩) কে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় গৃহবধুর স্বামী মাদ্রাসা শিক্ষক মো: সুলেমান হোসেন খান বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে গত ৫ মে রাতে কমলগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন।

গতকাল বুধবার বিকেলে আলাপকালে কমলগঞ্জ থানার ওসি মোঃ এনামুল হক বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগের সত্যতা নেই। এছাড়া স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি আপোষ মীমাংসার মাধ্যমে দেখবেন বলে জানিয়েছেন।