বিচার ভিক্ষা নয় নৈতিক অধিকার : ড. কামাল

22135_f4বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : সংবিধান প্রণেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, বিচার ভিক্ষা চাওয়ার বিষয় নয়, এটা আমাদের নৈতিক অধিকার। অনেক সময় আমরা গুমের ভয়ে চুপ করে থাকতাম। কিন্তু এখন আর চুপ করে থাকবো না। চন্দন সরকার জীবন দিয়ে আমাদের জাগ্রত করে গেছেন। গতকাল নারায়ণগঞ্জে আইনজীবীদের শোকসভায় তিনি এসব কথা বলেন। আইনজীবী চন্দন কুমার সরকার ও প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামসহ ৭ হত্যা ঘটনায় খুনিদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবিতে সোমবার নারায়ণগঞ্জে আদালত বর্জন করে আদালত প্রাঙ্গণে বার কার্যালয়ের সামনে শোকসভার আয়োজন করে আইনজীবীরা। এ শোকসভায় ড. কামাল হোসেন আইনজীবীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন। দুপুর দেড়টার দিকে তিনি ওই শোকসভায় উপস্থিত হন। ড. কামাল হোসেন বলেন, চন্দন সরকারসহ সাত হত্যাকাণ্ড এখন আর শুধু নারায়ণগঞ্জের বিষয় না- এটা সারা বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষের বিষয়। আমাদের এ প্রতিবাদ প্রতিটি স্তরে ছড়িয়ে দেয়া হবে। বিচারের জন্য আমরা ২৫-৩০ বছর অপেক্ষা করতে পারবো না। বর্ষীয়ান এই আইনজীবী আরও বলেন, বাংলাদেশের ৫০ হাজার আইনজীবী ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবিতে আন্দোলন করবে। বেঁচে থাকার অধিকার আমাদের মৌলিক সাংবিধানিক অধিকার। আইনজীবীদের উদ্দেশে ড. কামাল হোসেন বলেন, কালো কোট পরেছেন, কোন ঘুষখোরের কাছে মাথা নত না করে মৌলিকভাবে কাজ করুন। যদি আইনজীবীদের মাঝে ঐক্য না থাকে তাহলে কালো কোট ছিঁড়ে ফেলুন। তিনি নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নেতাদের উদ্দেশে বলেন, আমি আপনাদের সব ধরনের আন্দোলনের সঙ্গে থাকবো। আপনারা সারা বাংলাদেশে আইনজীবীদের বারে প্রস্তাব রাখেন এ আন্দোলনে একত্মতা ঘোষণা করে আন্দোলন গড়ে তুলতে। এখনই আমাদের ঘুরে দাঁড়াতে হবে। সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সবাই এখন জাগ্রত। হত্যাকাণ্ডে জড়িত অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনতে হবে। জেলা ও দায়রা জজ আদালত বিচারকের সভাপতিত্বে এ সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এডভোকেট শাখাওয়াত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, সাবেক সভাপতি এডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, এডভোকেট আবদুল বারি ভূঁইয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা, এডভোকেট আবদুল হামিদ ভূঁইয়া ভাসানী, এডভোকেট মশিউর রহমান শাহীন, এডভোকেট আওলাদ হোসেন, এডভোকেট হুমায়ুন কবিরসহ সব বিচারক ও ম্যাজিস্ট্রেট, ঢাকা সুপ্রিম কোর্ট বার, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দসহ সব আইনজীবী শোকসভায় অংশ নেন। শোকসভা শেষে আদালত চত্বরে বিক্ষোভ মিছিল করেন আইনজীবীরা। পরে ড. কামাল হোসেনসহ আইনজীবী নেতারা নিহত আইনজীবী চন্দন কুমার সরকারের বাড়িতে গিয়ে তার শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানান। এ সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির পক্ষ থেকে নিহত চন্দন কুমার সরকারের পরিবারকে নগদ ২ লাখ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করেন ড. কামাল হোসেন।