ছাতকে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানার পরিবহন শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরণের দাবী

sunamganjঅরুন চক্রবর্তী, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
সুনামগঞ্জের ছাতকে লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানার পরিবহন শ্রমিকদের বেতন-ভাতা বন্ধ ও বিভিন্নভাবে হয়রানির অভিযোগে সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। রোববার বিকেলে জেলা প্রশাসক বরাবরে লাফার্জের পরিবহন শ্রমিকদের পক্ষে স্মারকলিপি প্রদান করেন সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি শাহাব উদ্দিন ও সেক্রেটারী নুরুল হক। এর অনুলিপি ছাতক-দোয়ারাবাজারের সংসদ সদস্য (সুনামগঞ্জ-৫), উপজেলা চেয়ারম্যান, ছাতক পৌর মেয়র ও ছাতক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরেও প্রেরন করা হয়েছে। স্মারকলিপিতে তারা উল্লেখ করেছেন, জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের পরিচয়- পত্রধারী কতিপয় সদস্য দীর্ঘদিন যাবৎ লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানায় পরিবহন শ্রমিকের কাজ করে আসছেন। এরই মধ্যে ৭জন পরিবহন শ্রমিককে কারখানায় চাকুরী স্থায়ীকরণ করা হয়েছে। অন্যান্য শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ীকরনের আশ্বাস দিয়ে আসছে কারখানা কর্তৃপক্ষ। শ্রমিকরা চাকুরী স্থায়ীকরনের আবেদন করলে কারখানা কর্তৃপক্ষ স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের মাধ্যমে বে-আইনিভাবে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের নামে ২০১২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শ্রমিক সরবরাহের চুক্তি স¤পাদন করে শ্রমিকদেরকে ঠিকাদারী প্রতিষ্টানের লোক হিসেবে ষড়যন্ত্রমূলক চিহিৃত করে। চুক্তি স¤পাদনের পূর্ব থেকেই পরিবহন শ্রমিকরা লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানায় কাজ করে আসছে। কিন্তু কর্তৃপক্ষ ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে শ্রমিকদের চাকুরী স্থায়ী করন না করে ২৩জন শ্রমিককে চাকুরী থেকে অব্যাহতি প্রদান করেন। এ প্রেক্ষিতে কারখানা কর্তৃপক্ষ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে বার-বার ধর্না দিয়ে শ্রমিকদের কোন লাভ হয়নি। গত বছরের ৯ ডিসেম্বর ভুক্তভোগী শ্রমিকরা  চাকুরী ফেরত ও বেতন-ভাতা প্রদানের দাবীতে চট্রগ্রাম ২য় শ্রম আদালতে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর কারখানা ও তাদের পোষ্য প্রতিষ্টানগুলো শ্রমিকদের বিভিন্নভাবে হয়রানী ও মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দিয়ে আসছে। অপরদিকে চাকুরী স্থায়ীকরন ও বেতন-ভাতা প্রদানের দাবীতে ২৩জন শ্রমিক নেী-পরিবহন মন্ত্রনালয় বরাবরে অভিযোগ দায়ের করা হলে গত রোববার সকালে শ্রম অধিদপ্তরে নিয়োজিত শ্রম ও কলকারখানা পরিদর্শক বাবু শুধাংশু ও ইন্সিপেক্টর সজিব আচার্য্য সম্বনয়ে ২সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানায় পরিদর্শন করেন।এদিকে শ্রম আদালতে মামলা নি¯পত্তি না হওয়া পর্যন্ত শ্রমিকদের সকল সুযোগ সুবিধা বহাল রাখার রায় প্রদান করলেও কারখানা কর্তৃপক্ষ মামলা বিচারাধীন থাকা অবস্থায় গত ২৯ জানুয়ারী মৌখিকভাবে শ্রমিকদের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে।##