‘বিএনপি গুপ্ত হত্যার সঙ্গে জড়িত’ : শেখ হাসিনা

21542_hasinaবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম :  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলেই দেশের মানুষ শান্তিতে থাকে। সব শ্রেণীর পেশার মানুষ তাদের কাজের অধিকার পায়, ন্যায্য মজুরি পায়। আওয়ামী লীগ সাধারণ মানুষের জন্য রাজনীতি করে। তিনি বৃহস্পতিবার বিকালে গাজীপুর ভাওয়াল বদরে আলম সরকারি কলেজ মাঠে আয়োজিত শ্রমিক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। এতে আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগের নেতারা বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন, যারা হত্যা-খুনের মাধ্যমে রাজনীতিতে এসেছিল তারাই এসব করে। এখন যতো গুপ্ত হত্যা হচ্ছে এসবের সঙ্গে তারাই জড়িত। তাদের এক নেতা চোরাগোপ্তা হামলার কথা বলেছেন। এতেই প্রমাণ হয় তারা গুপ্ত হত্যার সঙ্গে জড়িত।
তিনি বলেন, উনি যাদের পরামর্শে নির্বাচনে যাননি এখন তাদের কাছে যেনো তিনি যান। নির্বাচন না করার খেসারত এখন তাকে দিতে হবে।
প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেন, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাকে হত্যার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে হত্যা ক্যু’র রাজনীতি শুরু হয়। এই ঘটনার পর ক্যু’র মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে জিয়াউর রহমান হত্যার রাজনীতি শুরু করেছিলেন। যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন। বন্দি অনেককে মুক্ত করে দিয়েছিলেন। তাদেরকে এনে ক্ষমতায় বসিয়েছিলেন। তার পদাঙ্ক অনুসরণ করেন তার স্ত্রী। লাখো শহীদের রক্তেভেজা পতাকা তুলে দেন যুদ্ধাপরাধী রাজাকার আলবদর বাহিনীর হাতে। তারা মুক্তিযুদ্ধের ইসিহাস মুছে ফেলার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু পারেনি, পারবে না। তাদের স্থান বাংলার মাঠিতে হবে না।
তিনি বলেন, যখনই আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছে তখনই বাংলাদেশের মানুষ শান্তিতে থেকেছে। শুধু অশান্তিতে থাকেন একজন। তার নাম আপনারা জানেন।
তিনি বলেন, খালেদা জিয়া নির্বাচনের আগে বক্তব্য দেন ক্ষমতায় গেলে বন্ধ কারখানা খুলে দেবেন। আর ক্ষমতায় এলে সকল কারখানা বন্ধ করে দেন। শ্রমিকদের পথে বসিয়ে দেন।
আওয়ামী লীগ সরকারে এসেছে কলকারখানা চালু করেছি। শ্রমিকদের শিল্পের মালিকানা দেয়ার দৃষ্টান্ত আওয়ামী লীগই চালু করেছে। শ্রমিকরা ন্যয্য পাওয়ানা দাবি করে বিএনপির সময় আন্দোলন করেছিল। বিনিময়ে তারা পেয়েছিল গুলি। রমজান মাসে ১৭ জনকে শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছিল। তার হাতে কৃষকের রক্ত। তার হাতে শ্রমিকের রক্ত। ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনের আগে তারা গাড়িতে আগুন দিয়ে, পেট্রোল ও ককটেল দিয়ে মানুষ হত্যা করেছে। একদিকে মানুষ হত্যা করেছে। স্কুল পুড়িয়ে দিয়েছে। মসজিদের পবিত্রতা নষ্ট করেছে। ধর্মের নামে তারা রাজনীতি করে আর কোরআন শরিফ পোড়ায়। এটিই হল তাদের রাজনীতি।  তিনি আমেরিকার কাছে নালিশ পাঠান, আর্টিকেল লেখেন। ইংরেজিতে তিনি আর্টিকেল লেখেন। সংসদে যখন ধরলাম তখন তিনি বলেন, উনি লিখেননি।
নালিশ করে নির্বাচন বন্ধ করার চেষ্টা করেছিলেন। নালিশ করে কি পেয়েছেন?
নালিশ করে বালিশ পেয়েছেন। নির্বাচন করে মানুষ তাকে ভাঙা জুতার বাড়ি দিয়েছে।
বাংলাদেশে বৈষম্য চলবে না উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নি¤œ আয়ের মানুষ, বস্তিবাসী ও শ্রমিকদের কল্যাণে সরকার বহুমুখি উদ্যোগ নিয়েছে। বস্তিবাসীদের জন্য ঘরে ফেরা কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। নি¤œ আয়ের মানুষের জন্য আবাসনের ব্যবস্থা করতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।