‘১৪ মাসে ৩১০ নেতাকর্মী খুন’

fakrul-01বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, ১৪ মাসে বিরোধী দলের ৩১০ জন নেতাকর্মীকে র‌্যাব, পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীরা হত্যা করেছে। এই সময়ে গুম হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। গুম হত্যা বন্ধে সরকারের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, এখন দেশে মধ্যযুগীয় বর্বরতা চলছে। একটি স্বাধীন দেশ এভাবে চলতে পারে না। তিনি গত এক বছরে বিএনপির ২৭২জন নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে।
গুম-খুন-নির্যাতন ও খালেদা জিয়া, তারেক রহমানসহ সারাদেশের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর বিএনপি আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক সাদেক হোসেন খোকা।
তিনি বলেন, নিজেদের দুর্নীতির মামলাগুলো প্রত্যাহার করে খালেদা জিয়া ও  তারেক রহমানকে হেয় প্রতিপন্ন করতে সরকার দুদককে ব্যবহার করে একের পর এক মিথ্যা মামলা করছে। এর মাধ্যমে তারা (সরকার) জাতীয়তাবাদ ও স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বকে ধ্বংস করতে চায়।
দেশে কোন মানুষ নিরাপদ নয় ও বাংলাদেশ অরক্ষিত মন্তব্য করে ফখরুল বলেন, গতকাল নারায়ণগঞ্জে কাউন্সিলরসহ পাঁচজনকে তুলে নেয়া হয়েছে, এখনো হদিস নেই। এই অবস্থা ৭২ থেকে ৭৫ সালে ছিল। তখন মানুষকে তুলে নিয়ে যাওয়া হতো, পরে লাশ পাওয়া যেত। এমনও ছিল ছেলেকে দিয়ে বাবার মাথা কেটে ফুটবল খেলতে বাধ্য করা হতো। তিনি বলেন, আমরা তো এমন বাংলাদেশ চাইনি। এজন্য তো দেশ স্বাধীন করিনি।
তিনি বলেন, পাড়া মহল্লায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে অজেয় দুর্বার সংগঠন গড়ে তুলতে হবে। যারা কারও কাছে মাথা নত করবে না।
সমাবেশে বক্তব্য রাখেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, অর্থ সম্পাদক আবদুস সালাম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন প্রমুখ।