জামালগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বাজার গুলোতে মাদকের ছড়াছড়ি

sunamganjঅরুন চক্রবর্তী, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ উপজেলার ঐতিহ্যবাহী সাচনা বাজারসহ আশ-পাশের বাজার গুলোতে চলছে অবাদ মাদকের ছড়াছড়ি। নানান জাতের মাদকের নেশায় তারুণ্য বুদ হয়ে আছে। হাত বাড়ালেই যত্রতত্র মিলছে মাদক। এতে এলাকায় অপরাধ প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। সর্বনাশা ব্যাধি ছড়াচ্ছে সাচনা বাজারের কেন্দ্রীয় চোরাচালানী সিন্ডিকেট চক্র। এচক্রটি সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরের চোরা চালানীদের সাথে সন্ডিকেট করে দীর্ঘদিন ধরে এই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। প্রশাসনের কিছু অসাধু ব্যক্তিও এর সঙ্গে জড়িত রয়েছে বলে জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ।পাশাপাশি চলছে জোয়ার আসর প্রদর্শন সহ অবাধ এই প্রত্যক্ষ অঞ্চলের সামাজিক পরিবেশ কুলশিত হচ্ছে। আর এতে উদ্বেগ জনক হারে যুব সমাজ স¤পৃক্ত হচ্ছে। ব্যাপকভাবে বিপথ গামী হচ্ছে সম্ভাবনার যুবশক্তি। দেশীয় চোলাই (পাট্রা মদ) ছাড়া ও ভারত সীমান্তের কাটা তারের বেড়া টপকে আসছে ইন্ডিয়ান অফিসার চয়েজ, বিগবেনসহ বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ,গাজা,মরন নেশা হেরোইন,ফেন্সিডিল প্রভৃতি মাদক। ঘনবসতি চার দেওয়ালের নির্জন প্রকোষ্টে চলছে বড় রকম জোয়ার আসর। আর এসবকে কেন্দ্র করে চলছে পতিতাবৃত্তিও। সাচনা বাজারের মত একটি ঐতিহ্যবাহী বাজারের পরিবেশ দীর্ঘদিন ধরে এভাবেই কলুষিত হচ্ছে। গত বেশ কিছুদিন অপরাধ জগতের কর্মকান্ড বন্ধ থাকলেও এখন মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে অপরাধ জগতের হোতারা। তবে এখানে মাদক চোরাকারবারী ও ফটকা ব্যবসায়ীদের অভিনব কায়দার খদ্দেরদের হাতে মাদক সরবরাহ করছে বাজারে কয়েকটি ¯পটে

অনুসন্ধান চালিয়ে দেখা গেছে, সিগারেটের শলাকার ভেতরে রাতের আধারে গাজা ভরে প্রকাশে বিক্রি করা হচ্ছে দেদারসে। পুতুল নামের একজন এই ব্যবসার প্রধান হোতা। বাজারের উত্তর পাশে সি,এন,বি রোড়ে দেশীয় ঘরোয়া পাট্রা চোলাই মদ ও ভারতীয় বিভিন্ন ব্যান্ডের মদ খোলামেলা বিক্রি হচ্ছে। পুলিশ দেখেও দেখছেনা। জানা গেছে, এসব মাদক দ্রব্য সরবরাহের প্রধান হোতা যোগানদাতা সিএনবি রোড়ের শামছু মিয়া, পুজার মা, নাসির মিয়া (পলক), মোশারফ (মফিজ নগর), গৌরাঙ্গ সাচনা বাজার, কামাল হোসেন (কালীপুর), আলমগীর (পলক), জসিম পলক, মহব্বত আলী পলক, হায়াত উল্লার ছেলে লিটন মিয়া, নাসির, জমির আলী পলক, লাভী স্বামী মৃত নুরু মিয়া ও তার পুত্র মিন্টু মিয়া আজাদ মিয়া পলক, আনোয়ার পলক, নুরুল ইসলাম লামা বাজার, মোশারফ মফিজ নগর, মুজিবুর রহমান পিতা হাকিম মিয়া কালী বাড়ী, হিমাংশু সাচনা বাজার, লম্বা সিরাজ মিয়া গুলের হাটি, খাট সিরাজ মিয়া কামলাবাজ নামের কয়েকজন এই ব্যবসার পরিচালক। তাছাড়া রাত গভীর হলেই মদের মাতাল আড্ডায় ভরে যায় সাচনা বাজারের ওলিগলি এবং আতংকে থাকেন ব্যবসায়ীরা।##