সংবাদ সম্মেলনে নাজমুন নাহারের আকুতি আমি ন্যায় বিচার চাই

Dinajpur Babuমো.নুরুন্নবী বাবু দিনাজপুর প্রতিনিধি :
১২ এপ্রিল নাজমুন নাহারের দেবর বিপু মিথ্যা ভিত্তিহীন ও বানোয়াট তথ্য এনে যে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বৃহস্পতিবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে নাজমুন নাহার পাল্টা সাংবাদিক সম্মেলন করেছেন।

বৃহস্পতিবার লিখিত বক্তব্যে নাজমুন নাহার বলেন, বছরের পর বছর ধরে আমার উপর যে অমানবিক নির্যাতন চালানো হয়েছে তা যেন আর অন্য কোন স্ত্রীকে নির্যাতনের শিকার না হতে হয়। সমাজের ভদ্রবেশী মুখোশদারী লোকদের অন্তরালে যে কুৎসিত চেহারা তা তুলে ধরতে একজন উচ্ছাভিলাসী অর্থলোভী মহিলা কখনোই পৈত্রিক সম্পত্তির টাকা এনে স্বামীর হোতে তুলে দিতে পারে না এবং স্বামীর পৈত্রিক ভিটায় বাড়ি করতে পারে না। আমার দেবর বিপু অভিযোগ করেছে যে, সে আমার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে নিজ বাড়ি ছেড়ে ভাড়াটিয়া বাড়িতে উঠেছে। তার এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন। বিপু’র মূল উদ্দেশ্য ছিল আমাকে এবং আমার ছেলেকে বাড়ী থেকে উচ্ছেদ করা। প্রকৃত সত্য ঘটনা হলো এই যে, এর আগেও এই ঘটনাকে কেন্ত্র সুপরিকল্পিতভাবে কোর্টে মিথ্যা মামলা দিয়েছিলো এবং এই মামরা তারা হেরে যায়। এ থেকে প্রমানিত হয় যে, তারা এই মিথ্যা মনগড়া কাহিনী দিয়ে সত্যকে আড়াল করার চেষ্টা করেছে।

গত ৭/৮ বছর ধরে তার ভাই তানজি ও শবনম নামে ২টি মেয়ের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং সেই ঘটনার সূত্র ধরে আমার উপর বিভিন্ন সময় সে নানা অমানবিক নির্যাতন চালিয়েছে। বিষয়টি পৌরসভার মেয়র ও পাঁচকুড় গ্রামের চেয়ারম্যান স্বাক্ষী রয়েছেন। গত ৮ থেকে ১০ বছর আগেও তাদের দুই ভাইয়ের মধ্যে পৌরসভার পার্শ্বে একটি বাড়ি নিযে মামলা চলে। আমার দেবর বিপু ভাষ্য অনুযায়ী আমি নিজেই দীর্ঘ দিন যাবৎ ঘুমের ঔষুধ ও নেশা জাতীয় ঔষুধ খাইয়েছি। সামান্য একটি বাড়ির জন্য একজন মা কখনই এধরনের একটি ঘৃন্য কাজ করতে পারে না। বরং বিপুর বিভিন্ন কার্যকলাপ প্রমান করে যে, আমাদেরকে উচ্ছেদ করে সেই ওই বাড়ীর মালিকানা নিতে চায়। সুপরিকল্পিতভাবে ৫/৬ বছর ধরে মোবাইল ফোনে বিভিন্ন কথা রেডিং করে আমাকে ফাঁসানোর জন্য চেষ্টা করে। এর যথেষ্ট প্রমাণ আমার হাতে রয়েছে। সাংবাদিকদেরকে অনুরোধ জানিয়ে নাজমুন নাহার বলেন, আপনারা যেন বিভ্রান্তির শিকার না হন। লাবুর এই বাড়ীটি ছাড়া আর কিছুই নেই এবং বাড়ীটি ব্যাংকের কাছে দায়বদ্ধ রয়েছে।

যখনই একটা মেয়ে নির্যাতনের শিকার হয়ে প্রতিবাদী হয়ে ওঠে, ঠিক তখনই লাবু ও বিপুর মত পাশবিক নির্যাতনকারীরা মেয়েটির বিরুদ্ধে একটি মনগড়া কাহিনী করে এবং সত্যকে আড়াল করার জন্য তাদের এই ঘৃন্য কার্যকলাপে সাক্ষী আমি ও আমার ছেলে। সমাজের এই ধরনের লোকদের প্রতি আমি ধিক্কার জানাই। বাড়ী নয়, সম্পদ নয়, আমি আমার উপর নির্যাতনের ন্যায় বিচার চাই এবং আসামীদের গ্রেফতারের ব্যাপারে পুলিশের সহযোগিতা ও মহিলা পরিষদসহ মানবাধিকার সংগঠনের দৃষ্টি কামনা করছি।##