মোল্লাহাটে শিশু পুত্র হত্যার দায়ে মা সহ তিন জনের ফাঁসি

indexবাগেরহাট থেকে ডাঃ আওরঙ্গজেব কামাল ঃ বাগেরহাটের মোল্লাহাটে দেড় বছরের শিশু পুত্র হত্যার দায়ে মা সহ তিন জনের ফঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। সোমবার দুপুরে বাগেরহাটের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক এস এম সোলায়মান এই রায় ঘোষনা করেন। ফাঁসির দন্ডদেশ প্রাপ্তরা হলেন-নিহত শিশু পুত্র সাহেব আলীর মা লতিফা বেগম এবং আইন উদ্দিন মোল্লার দুই সন্তান মনির মোল্লা এবং নাজমা বেগম। তাদের সবার বাড়ি বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার নগরকান্দি গ্রামে। মামলার সংক্ষিপ্ত বিরবণি থেকে জানা যায়, মোল্লাহাট উপজেলার নগরকান্দি গ্রামের ইকু বিশ্বাসের স্ত্রী লতিফা বেগমের সাথে অবৈধ সম্পার্ক ছিল প্রতিবেশি মনির মোল্লার। ইকু বিশ্বাস এর বোনের টাকা হারিয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে সে তার স্ত্রী লতিফা বেগমকে মারধর করে। এঘটনায় প্রতিবেশি মনির মোল্লা ও তার বোন নাজমা বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে ইকু বিশ্বাসের দেড় বছরের শিশু পুত্র সাহেব আলী ওরফে ডিপজলকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে।২০০৫ সালের ১২ এপ্রিল রাতে ইকু বিশ্বাসের স্ত্রী লতিফা বেগম তার দেড় বছরের পুত্র সাবেব আলী ওরফে ডিপজলকে নিয়ে ঘুমায়। ইকু বিশ্বাস রাতে ভি.ডি.পি এর ডিউটি শেষ করে ঘরের বারান্দায় এসে ঘুমিয়ে পড়ে। পরদিন সকালে ইকু বিশ্বাসের মা তাদের ঘরে গিয়ে ডিপজলকে দেখতে না পেয়ে চিৎকার করে। এসময় তার চিৎকার শুনে ছেলে ইকু বিশ্বাস ও প্রতিবেশিরা ছুটে আসে।পরদিন ১৩ এপ্রিল সকালে বাড়ির উত্তর দিকের বেড়িবাধের পাশের একটি পুকুরে ডিপজলের লাশ পাওয়া যায়। এঘটনার মোল্লাহাট থানায় ওই দিন একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হয়ে।লাশের ময়না তদন্ত রিপোর্ট পাবার পর ওই বছরের ২৯ আগোষ্ট তারিখে নিহতের বাবা ইকু বিশ্বাস বাদি হয়ে নগরকান্দি গ্রামের আইন উদ্দিন মোল্লার ছেলে মনির মোল্লা ও মেয়ে নাজমা বেগমের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা মোল্লাহাট থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. নজিবুল হক ২০০৬ সালের ১০ মে তারিখে দন্ডদেশ প্রাপ্ত তিন জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগ পত্র (চার্জসিট) প্রদান করেন। আদালত মামলার দির্ঘ্য শুনানিতে ৭ জন স্বক্ষির স্বাক্ষ গ্রহণ শেষে আজ এই রায় প্রদান করেন। এসময় আসামীরা সবাই আদালতে উপস্থিত ছিলেন।