পার্বতীপুর বড়পুকুরিয়া খনি শ্রমিকদের ৪৮ ঘন্টার আলটিমেটাম

PIC-01বদরুদ্দোজা বুলু,পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ
পার্বতীপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি কর্তৃপক্ষ জনবল কমিয়ে নতুন জনবল কাঠামো (অর্গানোগ্রাম) প্রবর্তন করায় আজ রবিবার শ্রমিকরা খনি ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রশাসনিক ভবনের সামনে সংবাদ সম্মেলন করে। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি ওয়াজেদ আলী। সংবাদ সম্মেলনে আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে শ্রমিকদের দাবি মেনে নেওয়া না হলে কয়লা উত্তোলন বন্ধ করার হুমকি দেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয় খনির অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী খনিতে কর্মকর্তা কর্মচারী ও শ্রমিক মিলে ২৬৭৪ জন কর্মরত থাকার কথা থাকলেও সেখানে বর্তমানে কর্মরত আছেন মাত্র ১৩৫০জন। তার পরেও খনি কর্তৃপক্ষ পূর্বের জনবল কাঠামো বাতিল করে ৭৩৮ জনের একটি অর্গানোগ্রাম চুড়ান্ত করেছে। এতে খনির শ্রমিকদের চাকুরী হারানোর আশংকা প্রবল হয়ে উঠেছে। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি মেনে নেওয়া না হলে কয়লা উত্তোলন বন্ধসহ বড় ধরনের আন্দোলনের কর্মসূচি দিবেন বলে উলেখ করেন। সংবাদ সম্মেলনের পূর্বে শ্রমিকেরা খনি ক্যাম্পাসের ভেতরে বিক্ষোভ মিছিল প্রদক্ষিণ করে। মিছিল শেষে প্রশাসনিক ভবনের পশ্চিমে এক সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারন সম্পাদক শরিফুল ইসলাম, সাবেক সভাপতি রবিউল ইসলাম, নূর ইসলাম, সাইফুলাহ, সোহাগ প্রমূখ।

এব্যাপরে খনির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুজ্জামান জানান, নতুন জনবল কাঠামো নিত্যান্তই বিসিএমসিএল কোম্পানীর নিজস্ব বিষয়। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এক্সএমসি নিয়োজিত খনি শ্রমিকদের সঙ্গে নতুন প্রস্তাবিত অর্গানোগ্রামের কোন সম্পর্ক নেই। এখানে শ্রমিকদের ভাবনার কিছুই নেই। তারা যেহেতু এক্সএমসি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে নিয়োজিত সেহেতু এ জনবল কাঠামো তাদের কোন সমস্যায় ফেলবেনা। শ্রমিকদের আন্দোলন দূর্ভাবনার আশংকা থেকে হচ্ছে বলে তিনি মনে করেন।