লালমনিরহাটে সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসে আটক ২৬

lalmonirhat-10এস,এম সহিদুল ইসলাম লালমনিরহাট প্রতিনিধি ঃ লালমনিরহাটে প্রাক-প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে পাটগ্রাম পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক কাজী আসাদুজ্জামানসহ ২৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হচ্ছেন বড়খাতা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আহসান হাবিব লাভলু এবং সাবেক প্রতিমন্ত্রীর এপিএস আবু বক্কর সিদ্দিক শ্যামলের বোন জামাই সাফিউল । অন্যরা হলেন আলমগীর জাহিদ, বিমল চন্দ্র আানোয়ারুল, সহিদা বেগম, তপন কুমার, কামরুন্নহার, সিরাতুন জান্নাতি, শারমিন আফরোজ, লিপি রায়, নাজমুল, আসাদুজ্জামান, নজরুল ইসলাম, আতিকুল ইসলাম , সোহান , আকতারুল , রাশেদ , জুলফিকার , অনুপ কুমার , আঃ মালেক, পরেশ , শফিউল , আঃ কাদের ও ময়নুল হক। আটককৃত ২৬ জনের মধ্যে ৮ জন সাধারন পরীক্ষার্থী। বাকিরা সবাই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী বলে জানা গেছে।

লালমনিরহাট ডিবি পুলিশের ওসি প্রদীপ কুমার দাস সাংবাদিকদের জানান, পরীক্ষা শুরুর আগে উত্তরপত্রসহ প্রশ্ন সরবরাহের প্রস্তুতিকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদেরকে আটক করা হয়। তিনি বলেন, “শুক্রবার নিয়োগ পরীক্ষা শুরুর আগে খবর আসে শহরের দোয়েল আবাসিক হোটেলে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র বণ্ঠন করা হচ্ছে। খবর পেয়ে  ডিবি পুলিশের একটি দল ওই হোটেলে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। আটককৃতদের কাছ থেকে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ও ২৩টি মোবাইলসেট উদ্ধার করা হয়।

লালমনিরহাটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবু নুর মোহাম্মদ শামসুজ্জামান বলেন, “আটককৃতরা জেলায় অনুষ্ঠিত ২২টি নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র দেওয়ার কথা বলে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। তনি আরো বলেন, এর আগে সারাদেশের মধ্যে ১৭টি জেলায় প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে পরীক্ষা বাতিল করা হয়। বাতিলকৃত ১৭টি জেলার মধ্যে লালমনিরহাটও ছিল। সে মোতাবেক শুক্রবার বেলা আড়াইটায় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল।