নিয়োগ পরীক্ষায় দুই’শ শতাধিক মোবাইলফোন অকেজো করলেন সুনামগঞ্জের ডিসি

sunamganj-18অরুন চক্রবর্তী, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ
সুনামগঞ্জে প্রাথমিক সহকারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল সঙ্গে নিয়ে আসায় প্রায় দুইশতাধিক পরীক্ষার্থীর মোবাইল ফোন পানিতে ফেলে দিয়েছেন সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক। কঠোর নিষেধাজ্ঞা ও প্রচারণা থাকা সত্ত্বেও জেলা শহরের বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শনে গিয়ে যেসব পরীক্ষার্থীর কাছে জেলা প্রশাসক মোবাইল ফোন পেয়েছেন তাদের কাছ থেকে মোবাইল নিয়ে বালতির পানিতে ফেলে অকেজো করে দেন। এছাড়া জেলা শহরের জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পরীক্ষায় অসদোপায় অবলম্বনের দায়ে দুই পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায় শুক্রবার দুপুর আড়াইটা থেকে ৪টা পর্যন্ত জেলার ২৩টি কেন্দ্রে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।     পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইয়ামীন চৌধুরী বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শনে যান। কেন্দ্র পরিদর্শনকালে তিনি সুনামগঞ্জ সরকারি জুবিলি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৫০টি, হাজী মকবুল হোসেন পুরকায়স্থ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রায় ৫০টি এবং সরকারি এসসি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে প্রায় ১শ মোবাইল ফোন জব্দ করে পানি ভর্তি বালতিতে ফেলে রাখেন। এভাবে চারটি কেন্দ্রে প্রায় দুই শতাধিক মোবাইল পানিতে চুবিয়ে অকেজো করে দেন জেলা প্রশাসক। এছাড়াও বিভিন্ন কেন্দ্রে মোবাইল ফোন আগেই পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে জব্দ করেন দায়িত্বরত শিক্ষকবৃন্দ। সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ নূরুল ইসলাম বলেন, সরকার এবার খুব সতর্কতার সঙ্গে বাতিল হওয়া প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা পর্যবেক্ষণ করেছে। কোথাও যাতে কোন দুর্ঘটনা না ঘটে সেজন্য আমরা স¤পূর্ণ সতর্ক ছিলাম। পরীক্ষা চলাকালে জেলা প্রশাসক বিভিন্ন কেন্দ্রে ঘুরে প্রায় দুই শতাধিক পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন জব্দ করে তা পানিতে ফেলে দিয়েছেন। কঠোর নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও যাদের কাছে মোবাইল পাওয়া গেছে তাদের মোবাইল পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে চিজ করা হয়।##