আইভী-শামীম পাল্টাপাল্টি

19720_b2বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রধান সড়ক বঙ্গবন্ধু সড়কে গতকাল বিকালে টানটান উত্তেজনার মধ্যে মাত্র ৫০ গজের ব্যবধানে সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ এবং শামীম ওসমানের পৃথক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চ তানভীর মুহাম্মদ ত্বকীর সব হত্যাকারীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও সন্ত্রাসী ক্যাঙ্গারু পারভেজ গুমের মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে গত ২রা এপ্রিল সমাবেশ ঘোষণা করে। অপরদিকে শামীম ওসমানের অনুগত হিসেবে পরিচিত মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিকদের জানান, মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ব্যানারে সমাবেশ করবেন তারা। তবে উভয় সমাবেশে মেয়র আইভী ও শামীম ওসমান একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদগার করে বক্তব্য দেন। ত্বকী মঞ্চ বঙ্গবন্ধু সড়কের ডিআইটি বাণিজ্যিক এলাকায় রেলওয়ে জামে মসজিদের সামনে মঞ্চ করে। আর শামীম ওসমান অনুসারীরা বঙ্গবন্ধু সড়কের ২নং রেলগেট সংলগ্ন মিডটাউন শপিং কমপ্লেক্সের সামনে মঞ্চ করে।
সমাবেশ দু’টির মাঝখানে ২নং রেলগেট এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ অবস্থান নেয়।
ত্বকী মঞ্চের সমাবেশে প্রধান অতিথি সিটি মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেন, শামীম ওসমান আজ সারাদেশে ত্বকীর খুনি হিসেবে চিহ্নিত। শামীম ওসমান সবখানে বলে বেড়ান তার সঙ্গে আমার দ্বন্দ্ব রয়েছে। কিন্তু শামীম ওসমানের সঙ্গে আমার দলীয় পদপদবি নিয়ে কোন দ্বন্দ্ব নেই। তার সঙ্গে আমার আদর্শগত বিরোধ রয়েছে। আমি সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে আর শামীম সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, ভূমিদস্যুতা ছাড়া চলতে পারে না। শামীম ওসমানের বাবার সঙ্গে আমার বাবা আলী আহাম্মদ চুনকার রাজনৈতিক নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা ছিল। বাংলাদেশের বেশির ভাগ জেলাতেই আওয়ামী লীগের নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা এখনও রয়েছে। আমি ১৭ বছর দেশে ছিলাম না। তখনও শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জে দলের মধ্যে থাকা তার বিরোধিতাকারীদের খুন করেছেন। সন্ত্রাসী ক্যাঙ্গারু পারভেজকে শামীম ওসমান নিজেই গুম করে মিথ্যা মামলা দিয়ে তার দায় এখন আমার ভাই, ভাগ্নেসহ ত্বকী হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদকারীদের ওপর চাপাতে চাইছে। একটি নয় ১০টি মামলা দিয়েও শামীম ওসমান আমার কণ্ঠ স্তব্ধ করতে পারবে না। শামীম ওসমান আমার ২ সন্তানকে হত্যার হুমকি দিয়েছে। শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জের যুব সমাজের হাতে অস্ত্র ও মাদক তুলে দিয়ে তাদের জীবন ধ্বংস করে দিচ্ছেন। নিজের প্রয়োজন শেষ হলে অপকর্ম যাতে প্রকাশ না পায় সেজন্য নিজের ক্যাডারদের তিনি খুন করে গুম করে ফেলেন। তার ক্যাডার মাকসুদ, ক্যাঙ্গারু পারভেজের পরিণতি সবাই জানে। শুধু ত্বকী নয়, নাসিম ওসমানের ছেলে আজমেরী ওসমান আশিক, মিঠু, চঞ্চল, ভুলু সাহাসহ অসংখ্য মানুষকে হত্যা করেছে। টর্চার সেলে ব্যবসায়ীদের ধরে নিয়ে নির্যাতন করে টাকা আদায় করা হয়।
সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বির সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন প্রবীণ রাজনীতিবিদ এবং ন্যাপের আহবায়ক পঙ্কজ ভট্টাচার্য, ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি ও বাসসের উপ বার্তা সম্পাদক হালিম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি এবি সিদ্দিক, সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান, জেলা যুবলীগের সভাপতি আবদুল কাদির, জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক রোকন উদ্দিন আহমেদ, জেলা ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আওলাদ হোসেন, জেলা সিপিবির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, জেলা বাসদের সমন্বয়ক নিখিল দাস, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মাহাবুবুর রহমান মাসুম, সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি প্রদীপ ঘোষ বাবু, কেন্দ্রীয় খেলা ঘরের সম্পাদক জহিরুল ইসলাম।
পঙ্কজ ভট্টাচার্জ বলেন, পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে ত্বকী হত্যাকাণ্ডের বিচারের ওপর অঘোষিত ইন্ডেমনিটি জারি করা হয়েছে। সংসদে পাস হওয়া ইন্ডেমনিটি যেমন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বাঁচাতে পারেনি, তেমনি অঘোষিত ইন্ডেমনিটি ত্বকীর খুনিদের বাঁচাতে পারবে না।
রফিউর রাব্বি বলেন, ত্বকী মঞ্চের কোন কর্মসূচি থাকলেই শামীম ওসমান সেদিন পাল্টা কর্মসূচি দেন। ত্বকী মঞ্চের আন্দোলনে খুনি শামীম ওসমান ভয় পান।
ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস রাষ্ট্রীয়ভাবে পালিত হয়েছে বৃহস্পতিবার। শামীম ওসমান সেদিন নীরব ছিলেন। নিজের অপকর্ম জায়েজ করতে শামীম ওসমান আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহার করছেন।
অপরদিকে মুজিব নগর দিবসের সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শামীম ওসমান বলেন, সিটি মেয়র আইভী নিরীহ মানুষের জমি দখল করে বাড়ি নির্মাণ করেছে। দেওভোগের ঐতিহ্যবাহী ন্যাশনাল ক্লাব উচ্ছেদ করেছেন অথচ মন্দিরের সম্পত্তি জিউসপুকুর দখল করে রেখেছেন। কিন্তু তাদের এত জনপ্রিয়তা যে ভয়ে মানুষ মুখ খুলতে পারছে না। এ সময় তিনি জমির দলিল নম্বর, দাগ নম্বরসহ প্রমাণপত্র জনসমক্ষে উচিয়ে ধরেন। শুক্রবার বিকালে শহরের ২নং রেলগেট সড়কে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শামীম ওসমান মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।
শামীম ওসমান আরও বলেন, এ দেশে নবাব সিরাজ আর জাতীয় ৪ নেতার মত দেশপ্রেমিকের সঙ্গে সঙ্গে মীরজাফর আর খন্দকার মোশতাকেরাও জন্ম নিয়েছিল। সে যুগের ঘসেটি বেগমের মতো এ যুগের সুফিয়ানী বেগমরাও পেছন থেকে আমাদের ছুরি মারছে।  নারায়ণগঞ্জে অনেকে বড় বড় কথা আর বুুলি ছাড়েন অথচ তারাই সাধারণ মানুষের বাপ-দাদার ভিটেমাটি দখল করে অট্টালিকা বানিয়ে আছেন।  তিনি বলেন, মুজিবনগর দিবসের প্রতি নারায়ণগঞ্জবাসীর অন্যরকম অনুভূতি রয়েছে। কারণ, স্বাধীনতার ঐতিহাসিক ঘোষণাপত্র তৈরি হয়েছিল বায়তুল আমানে। সভায় সভাপতিত্ব করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা।
সভায় শামীম ওসমান পরিবেশবাদী রিজওয়ানার স্বামী অপহরণ প্রসঙ্গে বলেন, পরিবেশবাদী রিজওয়ানার স্বামী অপহরণের মাত্র ৩০ ঘণ্টার ব্যবধানে উদ্ধার হয়ে গেলেন। আর এই সরকারের গত আমলেই তরুণ লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি নুরুল আমিন মাকসুদকে অপহরণ করে হত্যা করা হলো, জেলা যুবলীগের প্রচার সম্পাদক জহিরুল ইসলাম পারভেজকে তার স্ত্রীর সোহানার সামনে দিনে দুপুরে অপহরণ করা হলো। আজও তার  হদিস দিতে ব্যর্থ হয়েছে প্রশাসন।
শামীম ওসমান সিটি মেয়র আইভীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, মাকসুদকে যখন হত্যা করা হয়েছিল তখন এই সুফিয়ানী বেগমরা বলেছিলেন মাকসুদ দলের কেউ নন। অপহরণের পর পারভেজকে তারা সন্ত্রাসী বলে আখ্যা দিয়েছিলেন। একটি টিভি চ্যানেলে দেখলাম পারভেজ অপহরণ মামলায় জেলহাজতে যাওয়ায় বেগম সুফিয়ানী বললেন, তার ভাই যুবলীগ করে, তার বোনের জামাতা যুবলীগ করে। তাহলে মাকসুদ আর পারভেজরা কি জামায়াত করত?
শামীম ওসমান বলেন, খালেদা জিয়ার মতো আপনারাও সুর মিলিয়ে বলেছিলেন ২৫শে অক্টোবরের পর শেখ হাসিনা ক্ষমতায় থাকবে না, আমাদের হাত পা ভেঙে দেবেন। এটা কোন ভদ্রলোকের ভাষা হতে পারে না। এটা লাঠিয়ালদের বংশধরের মতো কথা হয়েছে। সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, অ্যাডভোকেটন আনিসুর রহমান দিপু, আবু হাসনাত শহীদ বাদল, নূর হোসেন, শাহাদাৎ হোসেন সাজনু  ও ইসরাত জাহান স্মৃতি প্রমুখ।