জনমত জরিপে পূর্বাভাস : ভারতে আগামী সরকার গঠন করবে বিজেপি

19294_f2বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : ভারতের ষোড়শ লোকসভা নির্বাচনে ভারতীয় জনতা পার্টি তথা বিজেপি’র  নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট (এনডিএ)  লোকসভার ৫৪৩টি আসনের মধ্যে সরকার গঠনের জন্য প্রয়োজনীয় ম্যাজিক নম্বর ২৭২-এ সহজেই পৌঁছে যাবে। ফলে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়েই এনডিএ ভারতের আগামী সরকার গঠন করবে। এমনই পূর্বাভাস  পাওয়া গেছে সর্বশেষ জনমত জরিপে। এনডিটিভি পরিচালিত এই জনমত জরিপে বলা হয়েছে, উত্তর প্রদেশ, বিহার, মহারাষ্ট্র ও মধ্যপ্রদেশে বিজেপির অসাধারণ পারফরমেন্সেই এনডিএ ২৭৫টি আসনে জিততে পারে। এর মধ্যে বিজেপি একাই পেতে পারে ২২৬টি আসন। ১৯৯১ সালের পরে কোন রাজনৈতিক দল এত ভাল ফল করেনি। ঠিক এক মাস আগের কোন জনমত জরিপে বিজেপির নেতৃত্বাধীন জোট একাই সরকার গঠন করতে পারবে তা বলা হয় নি। কিন্তু ৪ দফা নির্বাচনের পরে জনমত সমীক্ষায় স্পষ্ট ইঙ্গিত মিলেছে যে, ভারতে এবার গেরুয়া রাজনীতির ঝড়ে কাবু হয়ে পড়ছে অন্যান্য দল। জরিপের ফলাফলে আভাস দেয়া হয়েছে, কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক জোট (ইউপিএ) পেতে পারে ১১১টি আসন। কংগ্রেস এককভাবে এক শ’ পেরুতেও পারবে না। তারা   পেতে পারে  মাত্র ৯২টি আসন। পশ্চিমবঙ্গে মমতার তৃণমূল কংগ্রেস দল পেতে পারে ৩০টি আসন। বামফ্রন্ট  পেতে পারে ৮টি ও কংগ্রেস পেতে পারে ৪টি আসন। তামিলনাড়ুতে সাবেক অভিনেত্রী জয়ললিতা জয়রামের দল পেতে পারে ২২টি আসন। ২০০৯ সালের তুলনায় এনডিএ এবারের ভোটে উত্তর প্রদেশ, বিহার, মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, অন্ধ্রপ্রদেশ ও মধ্যপ্রদেশে ১০৯টি আসন অতিরিক্ত পাবে। গতবারে উত্তর প্রদেশে এনডিএ পেয়েছিল ১০টি আসন। এবার মোদি হাওয়ায় ওই রাজ্যে বিজেপি ৪১টি আসন অতিরিক্ত পেয়ে সহজেই ৫১টিতে পৌঁছে যাবে বলে জনমত জরিপে আভাস দেয়া হয়েছে। মহারাষ্ট্রে গতবারের ২০টি আসনকে বাড়িয়ে ৩৭টি আসনে, বিহারে গতবারের ১২টি আসনকে বাড়িয়ে ২৪টিতে নিয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও রাজস্থানে গতবারের চেয়ে অতিরিক্ত ১৭টি আসন, অন্ধ্রপ্রদেশে ১২টি আসন ও মধ্য প্রদেশে ১০টি আসন অতিরিক্ত পাবে। গত পাঁচ বছরে এনডিএ কর্ণাটকে সবচেয়ে কম আসন পেয়েছে। কর্ণাটকে এনডিএ গত নির্বাচনে যে ক’টি আসন পেয়েছিল এবার তার চেয়ে ৭টি আসন কম পাবে। তেমনি ছত্তিশগড়ে দু’টি এবং পশ্চিমবঙ্গে ১টি আসন এনডিএ হারাতে পারে। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ প্রায় সব রাজ্যেই শোচনীয় ফল করবে। অন্ধ্রপ্রদেশে কংগ্রেসের ফল হবে খুব খারাপ। কংগ্রেস এই রাজ্যে গতবারের ৩৩টি আসন থেকে নেমে আসবে ৬টিতে। তবে কর্ণাটক, ছত্তিশগড় ও আসামে কংগ্রেস বেশ খানিকটা লাভবান হবে বলে জনমত জরিপে আভাস দেয়া হয়েছে। বিহারে লালুপ্রসাদ যাদবের আরজেডির সঙ্গে জোট করার ফলে কংগ্রেস ৬টি আসনে লাভবান হবে। তবে বিজেপি ও কংগ্রেসের পরই ভারতে তৃতীয় বৃহত্তম দলের যোগ্যতা অর্জন করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এরা  পেতে পারে ৩০টি আসন। গতবারের চেয়ে তা ১১টি আসন বেশি।  তৃণমূল কংগ্রেসের পরে জয়ললিতার এআইডিএমকে পাবে ২২টি আসন, সমাজবাদী পার্টি পাবে ১৪টি আসন, বিজু জনতা দল পাবে ১৩টি আসন, ডিএমকে ও তার শরিকরা পাবে ১৪টি আসন। বামরা গতবারের আসন অনেক খুইয়ে পৌঁছতে পারে মাত্র ২২টি আসনে। তবে জনমত জরিপে আম আদমি পার্টির অবস্থা খুবই  শোচনীয় বলে আভাস দেয়া হয়েছে। কয়েক মাস আগেই যেখানে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে আম আদমি পার্টি সরকার গঠন করে চমক দেখিয়েছিল সেই দিল্লিতেই আম আদমি পার্টি একটির বেশি আসন পাবে না বলে জরিপে আভাস দেয়া হয়েছে। অন্য কোন রাজ্য থেকে এই পার্টির ঝুলিতে কোন আসন আসবে না বলে জানানো হয়েছে। তবে জনমত জরিপের সর্বশেষ আভাস যদি সত্যি হয় তাহলে এনডিএকে নতুন কোন জোট সঙ্গীর খোঁজ করতে হবে না। ৭ই এপ্রিল ভারতের  লোকসভা নির্বাচন শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৪ দফা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাকি রয়েছে আরও ৫ দফা। ১২ই মে পর্যন্ত এই নির্বাচন চলবে। নির্বাচন শেষ হওয়ার চার দিনের মাথায় ১৬ই মে ফল প্রকাশ হবে।