শ্রেণীকক্ষ বরাদ্দসহ চার দফা দাবিতে জার্নালিজম বিভাগের উপাচার্যকে স্মারকলিপি প্রদান

IMG_20140412_123511ইলিয়াস আহমেদ খান,জাবি প্রতিনিধি :
শ্রেণিকক্ষসহ চার দফা দাবিতে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামকে স্মারককলিপি প্রদান করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীরা। শনিবার দুপুর একটায় প্রশাসনিক ভবনের উপাচার্য ভবনে গিয়ে এ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

বিভাগের শিক্ষার্থীদের ঘোষিত চার দফা দাবি হচ্ছে- হয়রানিমূলক পুরাতন কলায় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত বাতিল করা। প্রশাসনের আশ্বাস অনুযায়ী দ্রুত নতুন কলাভবনের চার তলার কাজ স¤পন্ন করে বিভাগের জন্য স্থায়ীভাবে নির্দিষ্ট স্থান বরাদ্দ করা। প্রয়োজনীয় সংখ্যক শিক্ষক ও শ্রেণিকক্ষের ব্যবস্থা করা। সেমিনার গ্রন্থাগার, গণমাধ্যম গবেষণাগার এবং ক¤িপউটার ল্যাবরেটরির ব্যবস্থা করা।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টায় বিভাগের সামনে থেকে একটি শান্তিপূর্ণ মৌনমিছিল নিয়ে প্রশাসনিক ভবনে যায় জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের শিক্ষার্থীরা। স্মারকলিপি গ্রহনকালে উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম সমস্যাটি দ্রƒত সমাধানের আশ্বাস দিয়ে বলেন, বিষয়টি খুব গুরুত্বের সঙ্গে দেখছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। শ্রেণিকক্ষ বরাদ্দের জন্য শীঘ্রই কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলেও তিনি জানান।

জানা যায়, গত বছরের জানুয়ারির শেষের দিকে (২৪ জানুয়ারি) নতুন কলাভবনে শ্রেণিকক্ষের বরাদ্দের দাবিতে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করে বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এর একপর্যায়ে প্রশাসনিক ভবনে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেনকে অবরুদ্ধ করে রাখে। এ সময় উপাচার্য ও কলা ও মানবিকী অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. সৈয়দ কামরুল আহছান এ বিভাগের জন্য এই অনুষদেই বরাদ্দের জন্য আশ্বাস দিলেও তার কোন বাস্তবায়ন এখন পর্যন্ত দেখা যায়নি। পরবর্তীতে নতুন কলায় মাস্টার রুটিনের নামে যে ক্লাসের তালিকা দেওয়া হয় তাতে দেখা যায় একই শ্রেণিকক্ষ একাধিক বিভাগের ক্লাসের জন্য সূচি থাকে। এতে প্রতিনিয়ত বিব্রতকর অবস্থার সম্মুখীন হয় ও দুর্ভোগ পোহাতে হয় বলে অভিযোগ করেছে শিক্ষার্থীরা। এমন একটি পরিস্থিতিতে ঐ বিভাগের শিক্ষার্থীদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের ক্লাস করতে হচ্ছে অন্য বিভাগের শ্রেণিকক্ষে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা শিক্ষা কেন্দ্রে। ভাষা শিক্ষা কেন্দ্রে সর্বোচ্চ ৩০ জনের আসন ব্যভস্থা থাকলেও সেখানেই ৬০ জন বসতে হয়। ফলে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল আবহ এবং সাংস্কৃতিক কর্মকা- থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে জানা গেছে। এমনই অবস্থায় বিভাগে নতুন বর্ষের শিক্ষার্থীদের আগমন হচ্ছে। ফলে এ সমস্যা আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করছে বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

প্রসঙ্গত, ২০১১-১২ শিক্ষাবর্ষে কলা ও মানবিকী অনুষদের অধীনে জার্নালিজম এন্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগ যাত্রা শুরু করে। প্রতিষ্ঠার তিন বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত এ বিভাগের কোন নিজস্ব শ্রেণিকক্ষ নেই, নেই কোন সেমিনার গ্রন্থাগার এমনকি বিভাগের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাদান করার জন্যও নেই পর্যাপ্ত পরিমাণ বই, যন্ত্রপাতি এবং কোন ল্যাবরেটরি ।