‘ডিজিটালমন্ত্রী’ ওবায়দুল

ঢাকা: যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ‘ডিজিটালমন্ত্রী’ আখ্যা দিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ফার্মগেটে বিআরটিসির ২০টি ডিজিটাল বাস উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদেরের সফলতার প্রশংসা করতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এ আখ্যা দেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের রাজধানীতে চলাচলকারী বিআরটিসি বাসের সঙ্গে যুক্ত হওয়া ২০টি ডিজিটাল বাস সম্পর্কে ধারণা দেন।

ডিজিটাল বাসের সুবিধা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন. ‘পরীক্ষামূলকভাবে চালু হওয়া ২০টি ডিজিটাল বাসের মাধ্যমে একজন যাত্রী খুব সহজে (Urbenlaunchpad.org/brtc/) সাইট থেকে বাসের রুট, নির্দিষ্ট বাসটি কোন দিক দিয়ে যাচ্ছে, তা লাইভ ট্র্যাকিং করতে পারবেন। এর ফলে সহজেই তিনি ভ্রমণের পরিকল্পনা করতে পারবেন।
এছাড়াও বিআরটিসির ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ অফিসে বা যে কোনো জায়গায় বসে অনলাইনে বিভিন্ন বাসের রুটের সর্বশেষ অবস্থা জানতে পারবেন।’

ডিজিটাল বাস সার্ভিসের আরেকটি বিশেষ আকর্ষণীয় সুবিধা হচ্ছে ফ্রি ওয়াই-ফাই ইন্টারনেট। এ জন্য অবশ্য যাত্রীকে ব্যবহার করতে হবে স্মার্টফোন। তাতে থাকতে হবে কিউআর কোড স্ক্যানার অ্যাপ্লিকেশন।’ মূলত যানজটে যাত্রীদের বিরক্তির মাত্রা কিছুটা কমাতেই এই প্রয়াশ বলেও জানান যোগাযোগমন্ত্রী।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শেষ দিকে বাসে চলাচলকারী যাত্রীদের জন্য একটি সুখবরও দেন। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি যাত্রীরা রাস্তায় খুব কষ্ট করছেন। তাদের কষ্ট কিছুটা লাঘব করত খুব শিগগিরই এরকম আরো ১০০টি জোড়া লাগানো বাস, ৩০০টি সাধারণ সাইজের বাস এবং ৫০০টি ট্রাক ভারত থেকে আনা হবে।’

এর আগে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘সরকার সর্বদায় জনগণকে সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে চায়। হয়তো মাঝে মাঝে নানা স্বল্পতার কারণে তা পুরোপুরি সম্ভব হয় না।’ এছাড়াও এই সরকার তরুণপ্রজন্ম বান্ধব বলেও উল্লেখ করেন তিনি।