আহাম্মক, লেখাপড়া জানে না

ঢাকা: বঙ্গবন্ধুকে ‘অবৈধ প্রধানমন্ত্রী’ বলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে একহাত নিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। তারেককে ‘বাচ্চা ছেলে’, ‘আহাম্মক’ ও লেখাপড়া জানে না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।
বৃহস্পতিবার দশম সংসদের প্রথম অধিবেশনে শেষ কার্যদিবসে রাষ্ট্রপতির ভাষণ সম্পর্কে আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় এমন মন্তব্য করেন তোফায়েল আহমেদ।
তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু একজন মহামানব ছিলেন। পৃথিবীতে যার কোনো তুলনা হয় না। তাকে নিয়ে একটি বাচ্চা ছেলে মন্তব্য করে। যে ছিল ক্যান্টনমেন্টে। সে কি ইলেকশান দেখেছে? তার বাবাতো বলেছে, ৭ মার্চের ভাষণ ছিল আমদের জন্য গ্রিন সিগন্যাল। তাদের মূল উদ্দেশ্য হলো বাংলাদেশের ইতিহাস বিকৃত করা। যার নাম উচ্চারণ করলে সারা বিশ্ব মাথা নত করে, সেখানে তারেকের মতো একটা বাচ্চা ছেলে বেয়াদবি করে। বেয়াদবিরও একটা সীমা থাকা উচিৎ। যে একজন পলাতক আসামি টেলিভিশন তার কথা বড় করে দেখায়। কী শান শওকত! সে এতো টাকা কোথায় পায়? আরে আহাম্মক। লেখা পড়া জানে না।’
স্বাধীনতা পরবর্তী সরকারে বঙ্গবন্ধু নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী না হওয়ায় তাকে ‘অবৈধ প্রধানমন্ত্রী’ বলা প্রসঙ্গে তারেককে উদ্দেশ করে তোফায়েল বলেন, ‘তোর বাপ কি নির্বাচিত প্রতিনিধি ছিল? তোর বাপতো আমাদেরকে স্যার বলতে বলতে মুখের লালা বেরিয়ে যেতো।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমরা কি সত্তুরে জিয়াউর রহমাকে দেখেছি? জিয়াউর রহমানের নামে আগে কখনও মামলা হয়েছিল? আমার মতো ক্ষুদ্র মানুষের বিরুদ্ধেও ফাঁসির রায় হয়েছিল। ওরা ইতিহাসের পাতায় থাকবে না। বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর নাম ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে থাকবে। তিনি পৃথিবীর যেখানেই গেছেন সেখানে আকর্ষণীয় ব্যক্তি ছিলেন।’
‘ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর’ আহ্বান জানিয়ে আওয়ামী লীগের শীর্ষ এ নেতা বলেন, ‘পাকিস্তান অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশকে যারা অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায় তাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’
সামনে বালি সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রে জিএসপি কথা বলবেন বলে জানান বাণিজ্যমন্ত্রী। জিএসপি ছাড়াই যুক্তরাষ্ট্রে রপ্তানি আগের রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।
এ আলোচনায় আরও অংশ নেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ও সংরক্ষিত নারী আসনের সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি।
 tofayel_ahmed