পঞ্চগড়ে পরিবহন ধর্মঘট : চরম বিপাকে এইচ,এস,সি শিক্ষার্থীরা

DHBডিজার হোসেন বাদশা, পঞ্চগড় প্রতিনিধি : নসিমন, করিমন, ভটভটি, পাগলুসহ সরকার ঘোষিত সকল অবৈধ যান চলাচল বন্ধসহ অন্যান্য দাবীতে পঞ্চগড়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট পালন করছে জেলা মোটর মালিক সমিতি। সরকার ঘোষিত সকল অবৈধ যান চলাচল বন্ধ, বাংলাবান্ধা বন্দরে অতিরিক্ত লেবার বকশিষ আদায় বন্ধ ও বাংলাবান্ধা ক্যাম্পের সামনে দিয়ে সন্ধ্যা ৬ টার পরিবর্তে রাত ১২টা পর্যন্ত বন্দরের পণ্য পরিবহনের দাবীতে আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে এই পরিবহন ধর্মঘট পালন করছে।

জেলা মোটর মালিক সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে জেলায় নসিমন, করিমন, ভটভটি, পাগলুসহ সরকার ঘোষিত সকল অবৈধ যান চলাচল করে আসছে। এতে দূর্ঘটনার পাশাপাশি মোটর মালিক সমিতিভূক্ত মালিকগণ ব্যবসায়ীকভাবে এবং শ্রমিকগণ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ বিষয়ে গত বছরের ৫ মে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে সিদ্ধান্ত গ্রহন করলেও তা বাস্তবায়ন করা  হয়নি।

অন্যদিকে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে তথাকথিত কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের নামে স্থানীয় কিছু সংখ্যক কুলি লোডিং/ আনলোডিং টাকা বাদে বকশিষ এর নামে প্রতি ট্রাক প্রতি বলপূর্বক দেড় থেকে দুই হাজার টাকা আদায় করছে। এ নিয়ে বন্দর এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটছে। এছাড়াও  বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ক্যাম্পের সামনে দিয়ে সন্ধ্যা ৬ টার পর কোন গাড়ি মালামাল কেরিং করতে পারে না। তাই বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ক্যাম্পের সামনে দিয়ে সন্ধ্যা ৬ টার পরিবর্তে রাত ১২ টা পর্যন্ত পণ্য পরিবহনের দাবী জানান। পরিবহন ধর্মঘটে আন্তজেলার সবকটি রুটে যানচলাচল বন্ধ থাকবে।
এই ধর্মঘটে সাধারণ যাত্রীসহ শিক্ষার্থীরা বিশেষ করে গ্রাম থেকে আগত চলতি ২০১৪ সালের এইচ. এস.সি পরীক্ষার্থীরা চরম দূর্ভোগে পড়েছে। আজ মঙ্গলবার সকালে দেখাগেছে পরিক্ষায় উপস্থিত হওয়ার জন্য অনেক শিক্ষার্থী সকাল ৬টার সময় বাই-সাইকেল নিয়ে পরিক্ষার উদ্যেশে বের হয়েছে। আবার কেউ গাড়ির জন্য অপেক্ষা করতে করতে শেষ পর্যন্ত ভেন যোগে পরিক্ষার জন্য বের হয়েছে।
সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, পরিক্ষার্থী আমিনুর রহমান, পিতা: রফিকুল ইসলাম, গ্রাম: পুহাতুগছ ডাংগি, আতিয়ার রহমান গ্রাম: শিলাইগুরি, তরিকুল, গ্রাম: নারায়নগছ, সাবান আরো অনেকেই রাতের বেলা হঠাৎ করে পরিবহন ধর্মঘটের কথা শুনে সকালে তারাতারি বাহির হয়েছে কিন্তু ধর্মঘটের কারণে দেরিতে পরিক্ষায় উপস্থিত হতে হয়েছে।
উল্লেখ্য যে, একই দাবীতে জেলা মোটর মালিক সমিতি এর আগেও কয়েক দফা পরিবহন ধর্মঘট পালন করেছে। তাদের দাবি গ্রহণ না করায় আবার এই ধর্মঘট পালন করছে।