দুই ছাত্রলীগ নেতার জবানিতে সাদ হত্যা : বিচার দাবিতে উত্তাল বাকৃবি

17759_f1বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : সাদ হত্যাকারীদের বিচার দাবিতে উত্তাল বাকৃবি। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রশাসন ভবন ঘেরাও করে সেখানে সমাবেশ করে। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতিও শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে। ওদিকে ব্যর্থতার দায় স্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. সুলতান উদ্দিন ভূঁইয়া এবং ছাত্র বিষয়ক বিভাগের অতিরিক্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অধ্যাপক ড. মনিরুজ্জামান পদত্যাগ করেছেন। শিক্ষার্থীরা সোমবারের মধ্যে সব ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি দিয়েছে। অপরদিকে গ্রেপ্তারকৃত দুই ছাত্রলীগ নেতা সজয় কুমার কুণ্ডু ও রোকনুজ্জামান রোকন হত্যাকাণ্ডের রোমহর্ষক বর্ণনা দিয়েছে পুলিশের কাছে। পাশাপাশি তারা আদালতেও সাদ হত্যার বর্ণনা দিয়েছে। গতকাল বিকাল ৩টায় আদালতে হাজির করা হয় দুই ছাত্রলীগ নেতাকে। তারা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে বলে, তারা রাতভর ক্রিকেট স্টাম্প দিয়ে সাদকে পেটায়। এ সময় সাদ বাঁচার জন্য তাদের কাছে আকুতি জানায়। কোন আকুতিই তাদের মন গলাতে পারেনি। গত সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের ছাত্র সাদ ইবনে মোমতাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের আশরাফুল হক হলে ছাত্রলীগের নেতাদের বেদম পিটুনিতে গুরুতর আহত হয়। পরে একটি প্রাইভেট ক্লিনিকে মারা যায়। এ খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিশ্ববিদ্যালয়।
এ ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে প্রশাসনিক ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রেখেছে শিক্ষার্থীরা। এ সময় ভিসির বাসভবন ঘেরাও করা হয়। আগামী ৭ই এপ্রিল পর্যন্ত অব্যাহত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। গতকাল সকাল ৯টার দিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে সমাবেশ করে। সেখান থেকে একটি মিছিল নিয়ে তারা ভিসির বাসভবনের সামনে গিয়ে অবস্থান ধর্মঘট করে। পরে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেয়। এদিকে আগামী সোমবারের মধ্যে অভিযুক্তদের আটক ও উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে শিক্ষার্থীরা সব ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে। ওই সময়ের মধ্যে দাবি কার্যকর না হলে আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে আন্দোলনকারীরা। বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ময়মনসিংহের পাটগুদাম মোড়ের কাছ থেকে পালিয়ে যাওয়ার সময় ২ ছাত্রলীগ নেতা সুজয় কুমার ও রোকনুজ্জামানকে আটক করে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানা পুলিশ। ময়মনসিংহ কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম সারওয়ার জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে পালিয়ে যাওয়ার সময় পাটগুদাম মোড়ের কাছ থেকে তাদের আটক করা হয়। তদন্ত কর্মকর্তা আবু তালিব জানান, গতকাল বিকাল ৩টায় গ্রেপ্তারকৃত সুজয় কুমার কুণ্ডু ও রোকনুজ্জামান রোকনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। আটক সুজয়ের বাড়ি রাজশাহী, রোকনের বাড়ি শেরপুরে। তারা দু’জনই বাকৃবি’র মাৎস্যবিজ্ঞান অনুষদের স্নাতক শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী এবং নিহত সাদের বন্ধু।
গতকাল বিকালে ময়মনসিংহ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় তারা। বিচারক ফারজানা আক্তার ১৬৪ ধারায় তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। প্রায় ৪৫ মিনিটের জবানবন্দিতে সুজয় ও রোকন হত্যাকাণ্ডের আদ্যোপান্ত তুলে ধরে। কোতোয়ালি থানার ওসি গোলাম সরোয়ার বলেন, সাদকে পিটিয়ে হত্যার কথা স্বীকার করে তারা জবানবন্দি দিয়েছে। তাদের দেয়া জবানবন্দিতে আরও বেশ কয়েকজনের নাম উঠে এসেছে। তাদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।