গোবিন্দগঞ্জে কলেজ ছাত্রী গণ ধর্ষনের শিকার

gaibandha-01গাইবান্ধা প্রতিনিধি ঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে প্রেমের প্রলোভন দিয়ে এক কলেজ ছাত্রীকে আটকে রেখে ৫জন নরপশু জোরপূর্বক গণ ধর্ষনের করেছে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানাগেছে,গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাপমারা ইউপির খামারপাড়া গ্রামের আখতারের পুত্র মুন্নু মিয়া (২২) জেলার সাঘাটা উপজেলার খামার ধনারুয়া গ্রামের রমজান আলীর কন্যা পাপিয়া (২০)নামের কলেজ ছাত্রীর সংগে র্দীঘ দিন যাবত মোবাইল ফোনে প্রেম সম্পর্ক গড়ে তোলে । এক পর্যায়ে মুন্নু মিয়া শুক্রবার বিকালে পাপিয়াকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ডেকে এনে মুন্নু সহ ৫ বন্ধু মিলে সিনেমা দেখে সন্ধ্যায় ফুলহার বারনী মেলায় যায়। সেখান থেকে রাত ৮টার দিকে বাড়ী যাওয়ার কথা বলে সাহেবগঞ্জ ইক্ষু খামার এলাকার নির্জন স্থানে ৪ বন্ধু পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষকরা হলেন, সাপমারা ইউপি চেয়ারম্যান তোফাজ্জল সরদারের  পুত্র রতন সরদার (২৫),ও চেয়ারম্যানের জামাই (অজ্ঞাত),খামার পাড়া গ্রামের  সেফাত উল্লার পুত্র ছাদেক আলী(৩৫),মতি সরদারের পুত্র শামীম সরদার (২৫),মোখছেদ আলীর পুত্র রুবেল (৩৫)। এবং ধর্ষন শেষে পাপিয়াকে ফেলে রেখে পালানোর সময় পাপিয়া মুন্নুর পিছু নিয়ে তার বাড়ীতে যায় । এ ঘটনায় পুরো এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে চেয়ারম্যানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, ধর্ষনের ঘটনা ঘটেছে । তবে আমাকে হেয় করতেই একটি মহল আমার স্বজনদের জড়িয়ে মিথ্যাচার করছে। এরির্পোট লেখা পর্যন্ত পাপিয়া প্রেমিক মুন্নুর বাড়ীতে অব¯হান করলেও নরপশুরা পলাতক রয়েছে।