নাগেশ্বরীতে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ইট কাঠও টিন ভাগাভাগির অভিযোগ

korigramসৌরভ কুমার ঘোষ,কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ
কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী উপজেলার ভিতরবন্দ ইউনিয়নের দিগদারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনের ইট কাঠ ও ঘড়ের টিন হেডমাষ্টার, সভাপতি ও সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের মেম্বারের মধ্যে ভাগবাটোয়ারা করে নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী ওই অনৈতিক কাজের সুষ্টু তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বরাবর লিখিত অভিযোগ করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

উল্লেখ্য দিগদারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি চলতি অর্থবছরে পাকা ভবন করার জন্য টেন্ডার করা হয়েছে। তবে ঠিকাদার এখনও কাজ শুরু করেননি। সরকারী বিধি মোতাবেক পুরাতন আধাপাকা টিনসেড ভবনটি প্রকাশ্য নিলামে বিক্রী করার নিয়ম থাকলেও হেডমাষ্টার দুলাল মিয়া, বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি কফিল উদ্দিন ও সংশ্লিষ্ট ৭নং ওয়াডের ইউপি সদস্য আইনুল হক ৬৮টি ফুট দৈর্ঘ্য পুরাতন ভবনের প্রায় ১৫বান্ডিল ঢেউ টিন, কাঠ, ঘরের দেয়ালের প্রায় ১০হাজার ইট, দরজা, জানালা ও তিনটি নলকুপ ভাগাভাগি করে নিয়েছে।

ঘটনাটি নিয়ে এলাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। অভিযোগকারীদের মধ্যে ইসমাইল হোসেন, বাচ্চু মিয়া, সাইফুর রহমান, একাব্বর আলী ও ওমেদ আলী জানান, সংশ্লিষ্ট কর্মকতারা সরেজমিন তদন্ত করে ব্যবস্থা না নিলে আমরা আদালতে মামলা করবো। স্কুলের প্রধান শিক্ষক দুলালের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, কিছু মালামাল আমার বাড়ীতে আর কিছু মালামাল সভাপতির বাড়ীতে রেখেছি।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি কফিল উদ্দিন বলেন, এটা আমাদের ব্যাপার। এলাকার কিছু লোক লিখিত অভিযোগ করছে তাতে কি হয়েছে। স্কুলের ব্যাপারে আমরা কমিটি বুঝবো’ অন্যে কারো করার কিছু নেই।

এ ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার তৌফিকুর রহমান জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।