‘লাখো কণ্ঠের জাতীয় সংগীত অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধারা উপেক্ষিত’ : নজরুল

16553_nazrulবিডি রিপোর্ট 24 ডটকম : রাজধানী তেজগাঁওয়ের জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে ‘লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীত’ গাওয়ার অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধাদের উপেক্ষা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। আজ দুপুরে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি সাংবাদিকদের এ মন্তব্য করেন। এর আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দলের নেতাকর্মীরা জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীতের আয়োজনে বিএনপির সম্পৃক্ততা না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে নজরুল ইসলাম বলেন, এখানে কোন রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণ ছিল না। সরকারের উদ্যোগে একটা প্রোগ্রাম হয়েছে। আমি অবাক বিস্ময়ে দেখেছি, এখানে মুক্তিযোদ্ধাদের অংশগ্রহণ ছিল না। স্বাধীনতা দিবসে যাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হলো  সেই মুক্তিযোদ্ধারা ছিলেন না। মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রণালয়ের নাম নেই। তাই  যেখানে মুক্তিযোদ্ধাদের উপেক্ষা করা হয়েছে সেখানে বিএনপি উপেক্ষতি হবেÑ এটাইতো স্বাভাবিক।  তিনি বলেন, ক্ষমতার লোভে বর্তমান সরকার ভোটার ও প্রার্থীবিহীন নির্বাচনে ক্ষমতায় এসেছে। সে কারণে জনগণের প্রতি তাদের দায়িত্ববোধ নেই। এজন্য বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধির পর এবার সড়কপথে টোল আদায় করার সিদ্ধান্ত নিয়ে জনগণের আরেকটি দুর্ভোগের সামনে ফেলতে চাইছে। বিএনপি নেতাকর্মীদের নির্যাতনের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, দেশের এমন কোন কারাগার নেই, যেখানে বিএনপির নেতাকর্মীরা মিথ্যা মামলায় কারাবরণ করছে না। দেশের প্রায় সব হাসপাতালে নির্যাতনের শিকার হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে তারা। এটি কোন গণতন্ত্র, যেখানে একটি প্রধান রাজনৈতিক দলের মহাসচিবকে পাঁচবার গ্রেপ্তার করা হয়। দেশের ক্রান্তিকাল চলছে দাবি করে নজরুল ইসলাম বলেন, স্বাধীনতা দিবসে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ফিরিয়ে এনে গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠার শপথ নিতে হবে। এজন্য নেতাকর্মীদের প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানান তিনি।
এর আগে সকাল ৮টায় সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান খালেদা জিয়া। দলীয় সূত্রে জানা  গেছে, প্রতিবছর স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানানোর পরপরই জিয়ার কবরে পুস্পমাল্য অর্পণের কর্মসূচি থাকলেও এবার জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে লাখো কণ্ঠে জাতীয় সংগীত গেয়ে ইতিহাস গড়ার অনুষ্ঠান থাকায় বিকাল ৩টায় শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের মাজার প্রাঙ্গণে যান খালেদা জিয়া। জিয়ার মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের মিলাদ ও দোয়া মাহফিলেও অংশ নেন তিনি। এসময়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস  চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, সাদেক হোসেন খোকা, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, ড. ওসমান ফারুক, আবদুল হালিম, ডা. এজেডএম জাহিদ  হোসেন, যুগ্ম মহাসচিব আমানউল্লাহ আমান, সালাহউদ্দিন আহমেদ, রুহুল কবির রিজভী আহমেদ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আ ন ম এহছানুল হক মিলন, নাজিম উদ্দিন আলম, শিক্ষাবষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, যুবদল সভাপতি সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহিলা দল সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানাসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।