জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ও স্বাধীনতার ঘোষক : তারেক রহমান

16535_tarek
মতিয়ার চৌধুরী ,লন্ডন প্রতিনিধিঃ শহীদ জিয়াউর রহমান ছিলেন বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি এটাই সত্য ইতিহাস। আর শহীদ জিয়াউর রহমানই স্বাধীনতার ঘোষক। তৎকালীন নেতারা স্বাধীনতার ঘোষনা দিতে ব্যার্থ হয়েছিলেন, জিযাউর রহমান নিজে স্বাধীনতার ঘোষনা  ড্রাফট করে ঘোষনা পড়েন।  ৭ই মার্চ যদি শেখ মুজিব স্বাধীনতা ঘোষনা করতেন তা-হলে স্বাধীনতা দিবস হতো ৮ই মার্চ। এটি যুক্তির কথা,এটি ডকুমেন্টারী ও এ্যাভিডেন্সের ব্যাপার। শেখ মুজিবকে বিতর্কিত করেছে আওয়ামীলীগ। শেখ মুজিব বাংলাদেশের স্বাধীনতা চাননি, তিনি চেয়েছিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে এবং পাকিস্তানীদের কাছে আত্মসমর্পনের জন্যে প্রস্তুত ছিলেন। এসব মন্তব্য বিএনপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমানের। যুক্তরাজ্য বিএনপি আয়োজিত ‘‘ বাংলাদেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ও স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউজর রহমান শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তারেক রহমান এসব মন্তব্য করেন। গতকাল ২৫মার্চ লন্ডন সময় বিকেল চারটা ত্রিশ মিনিট থেকে পাঁচটা পর্যন্ত দীর্ঘ ত্রিশ মিনিটের বক্তব্যে তারেক রহমান ১৯৭১ সালের প্রসঙ্গ টেনে বলেন শেখ মুজিব ১৬ মার্চ থেকে ২৪ মার্চ পর্যন্ত হোটেল ইন্টার কন্টিনেন্টালে এহিয়া খানের সাথে দফায় দফায় বৈঠক করে বলেছেন আলোচনা ফলপ্রসু হয়েছে। তিনি সেসময়কার দৈনিক ইত্তেফাকের নিউজের উদৃতি দিয়ে বলেন শেখ মুজিব চার দফা বাস্তবায়ন নিয়ে এহিয়ার সাথে দেন দরবার করেছেন। বাংলাদেশ নিয়ে শেখ মুজিবের কোন চিন্তা ছিলনা, তার উদ্দেশ্য ছিল আন্দোলনের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়া। শেখ মুজিব ওয়ার্লেসে ঢাকা থেকে চট্রগ্রামে স্বাধীনতার ঘোষনা পাঠাননি। তিনি যদি স্বাধীনতার ঘোষনা পাঠাতেন তাহলে সে সময় হোটেন ইন্টার কন্টিনেন্টালে অবস্থানরত বিদেশী সাংবাদিকদের বলতেন। কেননা সেসময় শতাধিক বিদেশী সাংবাদিক ঢাকায় ছিলেন। আমাদের দায়িত্ব স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জাতির সামনে তুলে ধরা। গতকাল ২৫মার্চ ইষ্ট লন্ডনের রয়েল রিজেন্সী অডিটরিয়ামে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি সায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুসের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক কয়ছর এম আহমদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলেচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কার্ডিফ ইউনিভারসিটির সাবেক লেকচারার ড. এ মালেক, যুক্তরাজ্য বিএনপির সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মাহিদুর রহমান, ঢাকা মহানগর যুবদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক এস এম জাহাঙ্গির, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিষ্টার কায়সার কামাল, বিএনপি কেন্দ্রীয় নেতা বদরুদ্দোজা বাদল, লক্ষীপুর জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সামসুদোহা সাবু। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওত করেন যুক্তরাজ্য বিএনপির ধর্মবিষক সম্পাদক মৌলানা শামীম আহমদ, স্বাগত বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি সায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস, মুলপ্রবন্ধ পাঠ করেন যুক্তরাজ্য বিএনপির অন্যতম নেতা ড. মুজিবুর রহমান, সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন সেলিম আহমদ, এমদাদ হোসেন টিপু, সুজাতুর রেজা, মনসুর আহমদ রুহেল, জসিম উদ্দিস সেলিম, নাছিম আহমদ চৌধুরী. আকতার হোসেন টুটুল, আলহাজ্ব তৈমুছ আলী, আবুল কালাম আজাদ, আব্দুল হামিদ চৌধুরী, এম এ মালেক, ব্যারিস্টার এম এ সালাম প্রমুখ। তারেক রহমানকে ফুল দিয়ে বরন করেন যুক্তরাজ্য ব্এিনপির সহসভাপতি টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাবেক মেয়র আব্দুল আজিজ সর্দার, অনুষ্টানে  তারেক রহমান যুক্তরাজ্য জাসাসের ওয়েব সাইট আনুষ্টানিক ভাবে উদ্ভোধন করেন। বিএনপি নেতা এম মালেক বলেন বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে ভারতের করদ রাজ্যে পরিনত করেছে। তিনি বলেন বর্তমান সরকার ভারতের দালাল এই সরকার দেশকে ভারতের কাছে বিক্রি করে দিয়েছে। তিনি বলেন দেশ দ্রোহিতার অভিযোগে জাতি শেখ হাসিনার বিচার করবে। তিনি ভারতীয় আগ্রাসান থেকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। ড. এম এ মালেক বলেন স্বাধীনতা যুদ্ধ আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে হয়নি স্বাধীনতা যুদ্ধ সংগঠিত হয় দেশের আপামর সাধারন মানুষের অংশ গ্রহনে। সকাল ১১টা ত্রিশ নিনিটে অনুষ্টান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও আয়োজকরা তা শুরু করেন বিলম্বে।