জয়পুরহাটে ছাগল চুরির পর জবাইয়ের অভিযোগে শিক্ষিকাসহ গ্রেপ্তার ৩

joypurhatএসএম শফিকুল ইসলাম,জয়পুরহাট :
ছাগল চুরির পর জবাইয়ের অভিযোগে জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার আলমপুর গ্রামের একজন শিক্ষকসহ তিন গ্রামবাসীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ তাদের বাড়ি থেকে ছাগলের চামড়া ও মাংস উদ্ধার করেছে। ছাগল চুরির ঘটনা জানাজানির পর রবিবার গ্রামবাসী সালিশ ডেকে বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করে। কিন্তু অভিযুক্তরা তাতে সাড়া না দেয়ায় অভিযোগ পেয়ে পুলিশ ওই গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক জোবেদা বেগমসহ তিনজনকে আটক করে। পরে এ ঘটনায় ওই গ্রামের ছাগল মালিক অতুল চন্দ্র বর্মণ আটককৃতদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন।

জানা গেছে,আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জোবেদা বেগম শনিবার বিকেলে স্কুল ছাত্রদের দিয়ে গ্রামের অতুল চন্দ্রের ছাগল চুরি করে। পরে গ্রামের ছাইফুল ইসলামের বাড়িতে বেলাল হোসেন ও মিজানুর রহমানের সহযোগীতায় ছাগল জবাই করে ভাগবাটোয়ারা করে নেয়। বিষয়টি জানাজানি হলে জোবেদার বাড়ি থেকে ছাগলের চামড়া ও আংশিক মাংস উদ্ধারের পর রবিবার স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল গ্রামবাসীদের নিয়ে সালিশ ডেকে জোবেদা বেগমের নয় হাজার টাকা জড়িমানা করে। কিন্তু জোবেদাসহ অভিযুক্তরা সালিশের রায় মেনে না নিলে ইউপি সদস্য বিষয়টি থানায়   অবহিত করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে শিক্ষক জোবেদা, বেলাল ও মিজানুরকে আটক করে থানায় নেয়।

আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র সুরুয, ফেরদৌস, রাশিদুল ও সৌরভ জানায়, শিক্ষক জোবেদা তাদের ছাগল ধরে নিয়ে যেতে বললে তারা তা সাইফুলের বাড়িতে পৌছে দেয়।

ছাগল মালিক অতুল চন্দ্র বর্মণ অভিযোগ করেন,গ্রামের আলমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক জোবেদা বেগম শনিবার তার ছেড়ে দেওয়া ছাগল ছাত্রদের সহযোগীতায় ধরে নিয়ে জবাই করে। তার বাড়ি থেকে ছাগলের চামড়া ও আংশিক মাংস উদ্ধার করে গ্রামবাসী। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মিমাংসা না হওয়ায় এ ব্যাপারে মামলা করা হয়েছে।

ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল বলেন,‘ছাগল চুরি করে জবাইয়ের অভিযোগ পেয়ে গ্রামবাসীদের সহযোগীতায় শিক্ষক জোবেদার বাড়ি থেকে আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি মিমাংসার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে পুলিশকে জানানোর পর তাদের আটক করা হয়েছে।

অভিযুক্ত শিক্ষক জোবেদা বেগম নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন,‘গ্রামের ছাইফুল ইসলামের বাড়িতে ছাগল জবাই করার পর তিনি সেখান থেকে কিছু মাংস নিয়েছেন।

ক্ষেতলাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইকবাল আনোয়ারুল জানান,‘ছাগল চুরির অভিযোগে শিক্ষকসহ তিনজন গ্রামবাসীকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।