দীঘিনালায় সন্ত্রাসীদের স্বশস্ত্র হামলায় এক ইউপিডিএফ নেতা নিহত,আহত ১

khagrachari-1খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি :
খাগড়াছড়ি দীঘিনালা উপজেলা বাবুছড়ায় প্রতিপক্ষের গুলিতে সুদৃষ্টি চাকমা (৩৫) নামে একজন নিহত ও হৃদ্ধি চাকমা(২৮) নামে একজন আহত হয়েছে। নিহত ব্যক্তি আঞ্চলিক রাজনৈতিক ইউপিডিএফ সমর্থিত সংগঠন গনতান্ত্রিক যুব ফোরামের সদস্য ও আহত ব্যক্তি ইউপিডিএফ এর সক্রিয়কর্মী বলে জানা গেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়,রবিবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে সুদৃষ্টি চাকমা ও হৃদ্ধি চাকমা দীঘিনালা বাবুছড়া রাস্তা মাথা নামক এলাকায় এক দোকানে বসে চা খাচ্ছিলেন। এ সময় আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা পতিপক্ষের স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা হঠাৎ করে চা দোকানে ঢুকে প্রথমে সুদৃষ্টি চাকমাকে মাথা ও পেতে এবং পরে আহত হৃদ্ধি চাকমাকে দুপায়ে গুলি করে পালিয়ে যায়। সুদৃষ্টি চাকমা ঘটনা স্থলে নিহত হন। ও হৃদ্ধি চাকমাকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় প্রথমে দীঘিনালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তিং করা হলেও পরে তাকে খাগড়াছড়ি সদর আধুনিক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। নিহত ব্যক্তি বাবুছড়ার মগ্যা কার্বারী পাড়ার মৃত নিতাই চাকমার ছেলে ও আহত ব্যক্তি বাঘাইছড়ির মারিশ্যা মডেল টাউনের মৃত শরৎ কার্বারীর ছেলে।

খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ সনজীব ত্রিপুরা জানান রোগীর ডান পায়ে ২টি ও বাম পায়ে ১ টি গুলি লেগেছে। তবে গুলি গুলো বের হয়ে গেছে। রোগী এখন আশংকা মুক্ত।

এ ব্যপারে দীঘিনালা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) সাহাদাৎ হোসেন টিটো ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন বলেন আগামী ৩১ মার্চ উপজেলা নির্বাচন তাই পরিস্থিতি যাতে আরো অন্য দিকে মোড় না নেয় তাই ঘটনা স্থলে নিরাপত্তা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে ইউপিডিএফ প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের প্রধান নিরন চাকমা স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সমন্বয়ক প্রদীপন খীসা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তিনি বলেন, রবিবার সকালে সুদৃষ্টি চাকমা ও হৃদ্ধি চাকমা সাংগঠনিক কাজে বাবুছড়ার রাস্তামাথায় বের হন। তারা একটি দোকানে বসে লোকজনের সাথে কথাবার্তা বলছিলেন। এ সময় হঠাৎ করে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা সন্তু গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা দোকানে ঢুকে খুব কাছ থেকে তাদেরকে লক্ষ্য করে প্রকাশ্যে ব্রাশ ফায়ার করে। এতে ঘটনাস্থলেই সুদৃষ্টি চাকমা নিহত হন এবং হৃদ্ধি চাকমা দুই পায়ে গুলিবিদ্ধ হন। আহত অবস্থায় হৃদ্ধি চাকমাকে উদ্ধার করে প্রথমে দীঘিনালা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিবৃতিতে তিনি, এ ঘটনাকে ন্যাক্কারজনক ও কাপুরুষোচিত উল্লেখ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের জুম্ম জনগণের ঐক্য আকাক্সক্ষাকে নস্যাৎ করার জন্য সন্তু লারমা সরকারের বিশেষ এজেন্ডা বাস্তবায়নে তার সশস্ত্র সন্ত্রাসী বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়ে এ হত্যাকান্ড সংঘটিত করেছে। এর মধ্যে দিয়ে সন্তু লারমা পার্বত্য চট্টগ্রামে আবার খুনের রাজত্ব কায়েম করতে শুরু করেছে।

বিবৃতিতে তিনি সন্তু লারমার প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের ঐক্য আকাক্সক্ষার প্রতি সম্মান দেখিয়ে অচিরেই এ ধরনের ঘৃণ্য খুন-খারাবির রাজনীতি বন্ধ করুন, নইলে জনগণ এর উপযুক্ত জবাব দেবে।

বিবৃতিতে তিনি সুদৃষ্টি চাকমার হত্যাকারী সন্তু গ্রুপের সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসার দাবি জানান।

অন্যদিকে পিসিজেএসএস(সন্তু) লারমা দলের সহ তথ্য প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা ঘটনা দায় অস্বীকার করে বলেন,দীঘিনালা তাদের কোন দলীয় কার্যক্রম নেই বলে জানান।