বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করলে হরতাল দেবে লেবার পার্টি

Halim (2)বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধির অযৌক্তিক প্রস্তাব জনস্বার্থ বিরোধী আখ্যায়িত করে গৃহীত সিদ্ধান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে মিছিলপূর্ব সমাবেশে লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান অবিলম্বে দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত  প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন। তিনি বলেন, অবিলম্বে মুল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার না করলে জনস্বার্থে হরতাল কর্মসূচী দেবে লেবার পার্টি।  পিডিবি সাধারন গ্রাহক পযার্য়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম একটাকা ৩৭ পয়সা বাড়ানোর যে প্রস্তাব দিয়েছে তা অন্যায়, অযৌক্তিক ও জনস্বার্থ পরিপন্থী। অন্যান্য গ্রাহক পর্যায়ে ৬ দশমিক ৬শতাংশ ও সেচ পাম্পের জন্য প্রতি ইউনিটের মুল্যবৃদ্ধির প্রস্তাব করা হয়েছে ১ টাকা ৪৯ পয়সা। পিডিবির বৈষম্যমুলক অযৌক্তিক বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধি দেশের অথনীতির ক্ষেএে বিশেষ করে কৃষি খাতে ভয়াবহ বিপর্যয় ডেকে আনবে। ইতোপুর্বে সরকার ঘোষনা করেছিল ২০১৪ সালের পরে বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধি করা হবে না বরং কমবে। কিন্তু সরকার তার ওয়াদা রক্ষার পরিবর্তে বিদ্যুতের দাম অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সরকার ৫ বছরে ৬ বার বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধি করেছে। বর্তমানেবিদ্যুতের দাম বাড়ানো নিয়ে ৭ বার বাড়ানো হলো।

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ ইরান বলেন-বতমান সরকার সরকারী গ্যাস ভিওিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ না করে বেসরকারী বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ করছে। একই গ্যাস দিয়ে সরকারী বিদুৎ কেন্দ্রে বিদ্যুৎ উৎপাদন করলে কমমুল্যে গ্রাহকরা বিদ্যুৎ পেত। এতে ৬০০ কোটি টাকা সাশ্রয় হতো। অথচ বেসরকারী বিদ্যুৎ কেন্দ্রে গ্যাস সরবরাহ করার কারনে বেশী মুল্যে বিদ্যুৎ কিনতে হচ্ছে। এভাবে সরকার কুইক রেন্টাল পদ্ধতিতে দলীয় লোকদের কোটি কোটি টাকা লুটপাটের সুযোগ করে দিয়েছে। সরকার দ্রব্যমুল্য উর্ধ্বগতির সাথে বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে শ্রমজীবি মেহনতি মানুষের জনদুভোর্গ আরেক ধাপ বাড়িয়ে দিয়েছে।

আজ (শনিবার) বেলা ১১টায় পল্টন মোড়ে বিদ্যুতের মুল্যবৃদ্ধির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বাংলাদেশ লেবার পার্টি ঢাকা মহানগর আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলপুর্ব সমাবেশ নগর সভাপতি শামসু উদ্দিন পারভেজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। কর্মসুচীতে প্রধান অতিথি ছিলেন লেবার পার্টির চেয়ারম্যান ডাঃ মোস্তাফিজুর রহমান ইরান। বক্তব্য রাখেন পার্টির মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, ভাইস চেয়ারম্যান এমদাদুল হক চৌধুরী, মোঃ মোসলেম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফারুক রহমান, যুগ্ম-মহাসচিব এডভোকেট আমিনুল ইসলাম রাজু, নগর সম্পাদক আশরাফ আলী হাওলাদার, প্রচার সম্পাদক আবদুর রহমান খোকন, শ্রম সম্পাদক মোহাম্মাদ আলী, ওলামা ফোরাম আহ্বায়ক মাওঃ আনোয়ার হোসাইন, যুবফোরাম আহ্বায়ক হুমায়উন কবীর,কামরুল ইসলাম সুরুজ, ডেমরা থানা সভাপতি ইমরান হোসেন, শাহজাহানপুর থানা সভাপতি আল আমিন,ধানমন্ডি থানার নেতা টিপু সুলতালসহ প্রমুখ।

মিছিলটি পল্টন মোড় থেকে শুরু হয়ে সেক্রেটারীয়েট, প্রেসক্লাব, হাইকোর্ট মোড় হয়ে তোপখানা রোড, পল্টন মোড় ঘুড়ে প্রেসক্লাবের সামনে সংক্ষিপ্ত ব্ক্তাব্য রেখে কর্মসূচী শেষ হয়।