শেষ ম্যাচেও হারল টাইগাররা

181025_57703বিডি রিপোর্ট 24 ডটকম :

শেষ ম্যাচটাও হারল টাইগাররা। আর এর মধ্য দিয়েই শেষ হল বাংলাদেশের এশিয়া কাপ। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ অনবদ্য দায়িত্বশীল এক ইনিংস খেলে এশিয়া কাপে দলকে শতভাগ সাফল্য বজায় রাখার ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা রাখলেন। ৬ বল হাতে রেখে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে ৩ উইকেটের কৃতিত্বপূর্ণ জয় এনে দেয়ার পাশাপাশি স্বাগতিকদের এক রাশ হতাশা উপহার দিয়ে খালি হাতেই টুর্নামেন্ট শেষে বাধ্য করলেন এ অলরাউন্ডার।

ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা ষষ্ঠ উইকেট জুটি বিচ্ছিন্ন করলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ইনিংসের ৪০তম ওভারে ৫২ বলে ৫ চারে ৪৪ রান করা চতুরঙ্গ ডি সিলভাকে উইকেটরক্ষক আনামুলের গ্লাভসবন্দী করে তিনি বাংলাদেশকে অনেক আকাঙ্খার ব্রেক-থ্রু এনে দিলেন তিনি। শেষ খবর, ৪৪ ওভার শেষে শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৭৬ রান।

মাত্র ৭৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলা শ্রীলঙ্কাকে আবারও জয়ের পথে ফিরিয়ে আনেন অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ এবং চতুরঙ্গ ডি সিলভা। ষষ্ঠ উইকেটে এ জুটি বাংলাদেশী বোলারদের হতাশ করে ৮২ রান যোগ করেন দলীয় ভান্ডারে।

এর আগে ইনিংসের শুরু থেকে প্রতিরোধের দেয়াল গড়া ওপেনার লাহিরু থিরিমান্নেকে ফেরান বাঁহাতি স্পিনার আরাফাত সানি। ফলে ২৩.১ ওভারে ৭৭ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে হারের শঙ্কায় কাঁপতে থাকে এশিয়া কাপের ফাইনালিস্টরা। থিরিমান্নে ৬০ বল থেকে ৩ চারের সাহায্যে ৩৩ রান করে আরাফাত সানির বলে লং অনে রুবেল হোসেনের তালুবন্দী হন।

চতুর্থ উইকেটে জোর প্রতিরোধ গড়েছিলেন আশান প্রিয়ঞ্জন ও লাহিরু থিরিমান্নে। কিন্তু ১৫তম ওভারে সেই প্রতিরোধ ভাঙলেন জিয়াউর রহমান। ১৪.৪ ওভারে দলীয় ৪৭ রানের মাথায় ৩৮ বলে ৩ বাউন্ডারিতে ২৪ রান করা প্রিয়ঞ্জনকে উইকেটরক্ষক আনামুলের গ্লাভসবন্দী করান তিনি। ফলে চতুর্থ উইকেটের পতন হয় লঙ্কানদের।

মাত্র ৮ রানে শীর্ষ ৩ উইকেট হারানোর পর শক্ত প্রতিরোধ গড়েন লাহিরু থিরিমান্নে ও আশান প্রিয়ঞ্জন। চতুর্থ উইকেটে এ জুটির সংগ্রহ ছিল ৩৯ রান। দলীয় ৮ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ব্যাটিং তারকা মাহেলা জয়বর্ধনে শূন্য রানে রান আউট হলে জুটিবদ্ধ হন এ দুজন।

এর আগে টানা দুই ওভারে শ্রীলঙ্কার দুই ইনফর্ম ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে সমর্থকদের উত্তাল করে তোলেন বাংলাদেশের পেসার আল আমিন হোসেন। ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই তিনি এবার ফেরান লঙ্কানদের ব্যাটিং স্তম্ভ কুমার সাঙ্গাকারাকে মাত্র ২ রানে। ফলে ৬ রানেই ২ উইকেট হারিয়ে ফেলে ফাইনাল নিশ্চিত করা শ্রীলঙ্কা। ইনিংসের শুরুতে জয়ের জন্য ২০৫ রানের সহজ লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা শ্রীলঙ্কাকে শুরুতেই ধাক্কা দেন আল আমিন। ইনফর্ম ব্যাটসম্যান কুশাল পেরেরাকে ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই উইকেটরক্ষক আনামুল হকের গ্লাভসবন্দী করে শুরুতেই সমর্থকদের উদ্বেলিত করে তোলেন তিনি।

এর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাটিং নৈপূণ্যের ছিঁটে ফোটাও দেখাতে পারেনি শেষ ম্যাচে টাইগাররা।ফলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেটে ২০৪ রান করতে সক্ষম হয় মুশফিক বাহিনী।

বৃহস্পতিবার ১২তম এশিয়া কাপের শেষ ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে প্রতিশ্রতির স্বাক্ষর রাখেন দুই ওপেনার আনামুল হক বিজয় এবং শামসুর রহমান। কিন্তু ১৯তম ওভারে ৫৭ বলে ৬ বাউন্ডারিতে ৩৯ রান করা শামসুর ও ওয়ান ডাউনে নামা মুমিনুল হক শূন্য রানে বিদায় নিলে চাপে পড়ে যায় স্বাগতিকরা।অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমও ব্যর্থ হন।ফলে ৮৭ রানে ৩ উইকেট খোয়ায় টাইগাররা। দুর্ভাগ্য বরণ করেন আনামুল হকও।

এশিয়া কাপে বাংলাদেশের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান অর্ধশতকের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেও ব্যর্থ হন। ৮৬ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ৪৯ রান করে ইনিংসের ২৯.১ ওভারে দলীয় ১০৬ রানের মাথায় আশান প্রিয়ঞ্জনের বলে ফ্লিক করতে গিয়ে শর্ট মিড উইকেটে লাহিরু থিরিমান্নের চমৎকার ক্যাচে পরিনত হন তিনি। একই সঙ্গে চতুর্থ উইকেটও হারায় বাংলাদেশ। এরপর ফেরেন ২০ রান করা সাকিব আল হাসানও।

ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে নাসির হোসেনের সঙ্গে মূল্যবান ৫৫ রানের জুটি উপহার দিয়ে পর পর বিদায় নেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নাসির হোসেন। ৪৭তম ওভারে সুরঙ্গ লাকমালের বলে ছক্কা মারতে গিয়ে ৪৯ বলে ৩০ রান করা নাসির ক্যাচ তুলে দেন মাহেলা জয়বর্ধনের বলে। এ সময় দলীয় সংগ্রহ ছিল ৪৬.৩ ওভারে ৭ উইকেটে ১৮৩ রান। ৪৫তম ওভারে লাকমালেরই বলে ৪১ বলে ৩০ রান করে বোল্ড হন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। এ সময় দলীয় সংগ্রহ ছিল ৬ উইকেটে ১৭৪ রান। তারও আগে সাকিব আল হাসানের বিদায়ে মারাত্মক বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। ইনিংসের ৩৩.২ ওভারে ৩২ বলে ২ চারে ২০ রান করা বিশ্বের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আশান প্রিয়ঞ্জনের বলে অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজের তালুবন্দী হন। এ সময় বাংলাদেশের সংগ্রহ ছিল ১১৯ রানে ৫ উইকেট।

বৃহস্পতিবার ১২তম এশিয়া কাপের নিজস্ব শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২৭ ওভারে দলীয় শতকের কোঠায় পৌঁছে বাংলাদেশ।

নিয়ম রক্ষার এই ম্যাচে বাংলাদেশ ওপেনার ইমরুল কায়েসকে পাচ্ছে না। চোটগ্রস্থ হওয়ার তার বদলে স্কোয়াডে ফিরেছে শামসুর রহমান। বাদ পড়েছেন আবদুর রাজ্জাক। তার বদলে একাদশে ফিরেছেন আরাফাত সানি। শ্রীলঙ্কা বিশ্রাম দিয়েছে লাসিথ মালিঙ্কাকে। খেলবেন না দিনেশ চান্ডিমালও।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

বাংলাদেশ ৫০ ওভার ২০৪/৯ (আনামুল ৪৯, শামসুর ৩৯, নাসির ৩০, মাহমুদুল্লাহ ৩০, সাকিব ২০, জিয়া ১২, প্রিয়ঞ্জন ২/১১, পেরেরা ২/২৯, লাকমাল ২/৩২, মেন্ডিস ২/৫৫)

বাংলাদেশ দল: শামসুর রহমান, আনামুল হক বিজয়, মুমিনুল হক, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, নাসির হোসেন, জিয়াউর রহমান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, আরাফাত সানি, রুবেল হোসেন ও আল-আমিন হোসেন।

শ্রীলঙ্কা দল: কুশল পেরেরা, লাহিরু থিরিমান্নে, কুমার সাঙ্গাকারা, মাহেলা জয়বর্ধনে, আশান প্রিয়াঞ্জন, অ্যাঞ্জোলো ম্যাথুস, চতুরঙ্গ ডি সিলভা, তিসারা পেরেরা, সচিত্র সেনানায়েক, অজন্তা মেন্ডিস ও সুরাঙ্গা লাকমল।